গাজীপুরে ২ শিশুকে অপহরণের পর হত্যা, গ্রেফতার ১

সারাদেশ

স্বদেশবাণী ডেস্ক:  গাজীপুরের গাছা থানা এলাকা থেকে ১০ দিনের ব্যবধানে অপহৃত হয় দুই শিশু। পুলিশের তদন্তে বেরিয়ে আসে মুক্তিপণের আশায় শিশু দুটিকে অপহরণের পর হত্যা করে মরদেহ গুম করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার দায়ে আলী আকবর নামে একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ বলছে, ৫ দিনের রিমান্ডে এনে তাকের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

জিজ্ঞাসাবাদে আলী আকবর বলেন, মুক্তিপণকে টার্গেট করে ছোট ছোট শিশুদের অপহরণ করতেন তিনি। রোববার বিকেলে গাছা থানায় এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এমন তথ্য জানান জিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার ইলতুৎমিশ।

তিনি বলেন, গত ৯ মার্চ গাছার পূর্ব কলমেশ্বর এলাকা থেকে অপহৃত হয় শিশু সুমাইয়া। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় এক ব্যক্তি মুখে মাস্ক পরিধান করে শিশুটিকে মাত্র তিন মিনিটের মধ্যে কোলে তুলে নিয়ে চলে যায়। পরদিন তার বাবার নম্বরে ফোন করে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। এর পর তথ্য প্রযুক্তি ও সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে তদন্তে নামে পুলিশ। তদন্তের এক পর্যায়ে পুলিশ ১৭ মার্চ দক্ষিণ খাইলকুর বাহার মার্কেট থেকে আলী আকবর নামে একজনকে গ্রেফতার করে। পরে তাকে ৫ দিনের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে আলী আকবর জানান, তার সহযোগী আনোয়ার হোসেনের সঙ্গে পরিকল্পনা করে মুক্তিপণের উদ্দেশ্যে শিশুটিকে অপহরণ করেন তিনি। পরে শিশু সুমাইয়াকে বস্তাবন্দি করে তুরাগ নদীর খালে ফেলে দেয়া হয়। এর আগে চক্রটি একই থানা এলাকা থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি শিশু নিহাদকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ঘটনার তিনদিন পর  শিশুটির মরদেহ ঢাকার শ্যামপুরের একটি তিনতলা বাড়ির পানির ট্যাংকি হতে উদ্ধার করে পুলিশ।

সংবাদ সম্মেলনে এডিসি হাসিবুল আলম, এসি আহসানুল হক, গাছা থানার ওসি ইসমাইল হোসেনসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *