পুলিশ ল্যাবের পাশে বাথরুমের ছাদে ২৯ কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ

সারাদেশ

স্বদেশবাণী ডেস্ক:  রাজশাহী টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার (টিটিসি) ল্যাবের ২৯টি কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ বাথরুমের ফলস ছাদের ওপর পাওয়া গেছে। টিটিসিতেই কর্মরত কেউ চুরির জন্য সিপিইউ থেকে খুলে যন্ত্রাংশগুলো সেখানে লুকিয়ে রেখেছিল বলে পুলিশের ধারণা।

রাজশাহী টিটিসির কম্পিউটার ল্যাবটি আইটি ভবনের তৃতীয়তলায় অবস্থিত। রোববার বিকালে কর্তৃপক্ষ চুরির বিষয়টি জানতে পারে। আইটি ভবনে ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরা থাকলেও ফুটেজ সেভ হতো না।

বিষয়টি সংশ্লিষ্টরা টিটিসির অধ্যক্ষ ইঞ্জিনিয়ার এসএম এমদাদুল হককে অবহিত করলেও তিনি পদক্ষেপ নেননি। ফলে এখন জড়িত ব্যক্তিকে শনাক্ত করা যাচ্ছে না।

পুলিশ বলছে, প্রাথমিক তদন্তে তাদের মনে হয়েছে এটা ছিঁচকে চোরের কাজ নয়।

অধ্যক্ষ ইঞ্জিনিয়ার এসএম এমদাদুল হক দাবি করেন, সিসি ক্যামেরার ফুটেজ হার্ডডিস্কে সেভ না হওয়ার বিষয়টি তিনি আগে থেকে জানতেন না। ভয়াবহ এ ঘটনায় নিজের কোনো দায় নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

অধ্যক্ষ জানান, রোববার বিকালে ল্যাবে প্রশিক্ষণার্থীদের কম্পিউটার ক্লাস ছিল। তখনই দেখা যায় কম্পিউটারগুলোর সিপিইউর যন্ত্রাংশ নেই। তবে মামলার এজাহারে তিনি উল্লেখ করেছেন, শনিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে রোববার ভোর ৬টার মধ্যে চুরির ঘটনা ঘটেছে।

চুরির ঘটনায় রোববার রাতেই রাজশাহী মহানগরীর শাহমখদুম থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা করেন অধ্যক্ষ। ঘটনা তদন্তে উপাধ্যক্ষ আক্তার শাহীনকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটিও তিনি গঠন করেছেন।

সোমবার সকালে তদন্ত কমিটির সদস্যরা ল্যাবটি পরিদর্শন করেন। এছাড়া রাতে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সোমবার দিনভর পুলিশ টিটিসিতে অবস্থান করে। অবশেষে রাতে বাথরুমের ছাদে যন্ত্রাংশগুলো খুঁজে পাওয়া যায়।

শাহ মখদুম থানার ওসি সাইফুল ইসলাম খান বলেন, এটা বাইরে থেকে আসা কোনো চোরের কাজ নয়। ভেতরেরই কেউ জড়িত। এটা আমরা শতভাগ নিশ্চিত। চুরির সঙ্গে যিনি যুক্ত তিনি ধীরে ধীরে এসব কম্পিউটারসামগ্রী বাথরুমের ফলস ছাদ থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন। এই ব্যক্তিটি কে তা জানার চেষ্টা চলছে। নিশ্চিত হওয়ামাত্র তাকে গ্রেফতার করা হবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *