সংক্রমণ কমায় টেস্টও কমেছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্য লীড

স্বদেশ বাণী ডেস্ক:  স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েছে। কিন্তু আমাদের দেশে দিন দিন করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হার কমে যাওয়ায় লোকজন আগের মতো আর টেস্ট করাতে আসছে না।

শনিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে মানিকগঞ্জে কর্নেল মালেক মেডিক্যাল কলেজের আরটি-পিসিআর ল্যাবের কার্যক্রম উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, করোনার প্রথম দিকে দেশে মাত্র একটি আরটি পিসিআর ল্যাব ছিল আর এখন দেশে ১১৫টি আরটি পিসিআর ল্যাব রয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসময় ভ্যাকসিন বিষয়ে বলেন- আমরা অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছি। বিশ্বের সবচেয়ে ভালো ভ্যাকসিন ম্যানুফ্যাকচারার ইন্ডিয়ার সঙ্গে চুক্তি করা হয়েছে। যখনই তারা তৈরি করবে এবং বাজারজাত করার অনুমতি পাবে তখনই আমরা ভ্যাকসিন পেয়ে যাবো।

মন্ত্রী আরও বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মাস্ক ব্যবহার করাটা খুবই জরুরী। মাস্ক পরলে নিজে ভালো থাকবেন, অপরকেও ভালো রাখতে পারবেন।

অনুষ্ঠানে কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, স্থানীয় সরকার শাখার উপপরিচালক ফৌজিয়া খান, উপাধ্যক্ষ ডা. শিশির রঞ্জন দাশসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েছে। কিন্তু আমাদের দেশে দিন দিন করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হার কমে যাওয়ায় লোকজন আগের মতো আর টেস্ট করাতে আসছে না।

শনিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে মানিকগঞ্জে কর্নেল মালেক মেডিক্যাল কলেজের আরটি-পিসিআর ল্যাবের কার্যক্রম উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, করোনার প্রথম দিকে দেশে মাত্র একটি আরটি পিসিআর ল্যাব ছিল আর এখন দেশে ১১৫টি আরটি পিসিআর ল্যাব রয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসময় ভ্যাকসিন বিষয়ে বলেন- আমরা অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছি। বিশ্বের সবচেয়ে ভালো ভ্যাকসিন ম্যানুফ্যাকচারার ইন্ডিয়ার সঙ্গে চুক্তি করা হয়েছে। যখনই তারা তৈরি করবে এবং বাজারজাত করার অনুমতি পাবে তখনই আমরা ভ্যাকসিন পেয়ে যাবো।

মন্ত্রী আরও বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মাস্ক ব্যবহার করাটা খুবই জরুরী। মাস্ক পরলে নিজে ভালো থাকবেন, অপরকেও ভালো রাখতে পারবেন।

অনুষ্ঠানে কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, স্থানীয় সরকার শাখার উপপরিচালক ফৌজিয়া খান, উপাধ্যক্ষ ডা. শিশির রঞ্জন দাশসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *