তারেক রহমানের ১৩তম কারাবন্দি দিবসে রাজশাহী মহানগর ছাত্রদলের আলোচনা সভা

রাজশাহী

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
রাজশাহী মহানগর ছাত্রদলের আয়োজনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ১৩ তম কারাবন্দী দিবস উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। নগরীর মালোপাড়াস্থ বিএনপি কার্যালয়ে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। প্রধান বক্তা ছিলেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমেটির ত্রাণ ও পূনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক ও এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউল হক রানা, মহানগর যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হাসনাইন হিকোল, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাকির হোসেন রিমন। সভা পরিচালনা করেন মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি। এছাড়াও মহানগর ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী জ্যাকি, সাংগঠনিক সম্পাদক মাকসুদুর রহমান সৌরভ, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরেফিন কনক, মতিহার থানা ছাত্রদল নেতা তরিকুল ইসলাম কনক সহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও থানা এবং ওয়ার্ডের ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি ও প্রধান বক্তা বলেন, তারেক রহমান হচ্ছে আগামীর রাষ্ট্র নায়ক। তিনি বিএনপি’র একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। তাঁকে তৎকালিন তত্বাবধায়ক সরকারের আমলে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়। এই অত্যাচারে তিনি অসুস্থ হলে পরে জামিনে মুক্ত হয়ে এখন লন্ডনে চিকিৎসারত অবস্থায় আছেন। এছাড়াও বিএনপি চেয়ারপার্সন ও তিনবারের সফল প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বর্তমান সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে নির্জন কারাগারে রেখেছে। তাঁকে সঠিকভাবে চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে না। এই সরকার বেগম জিয়াকে তিলে তিলে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে জানান তারা। তারা বলেন, সরকার এখন কি করছে তা আর ভাবার সময় নেই। এখন একটাই চিন্তা ও ভাবনা করতে হবে বেগম খালেদা জিয়াকে কিভাবে জেল থেকে মুক্ত এবং তারুন্যের অহংকার তারেক রহমানকে দেশে কিভাবে ফিরিয়ে আনা হবে। বেগম জিয়ার জেল থেকে মুক্তি এবং তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে এই সরকারের পতনের জন্য কঠোর আন্দোলনের কোন বিকল্প নাই। আগামীতে কেন্দ্রের নিদের্শনা অনুযায়ী যে কোন ধরনের আন্দোলনে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের রাজপথে নামার আহবান জানান তারা।

সভাপতি উপস্থিত সকলকে বিএনপি’র নির্দেশনা অনুযায়ী সকল প্রকার আন্দোলনে শরীক হওয়ার জন্য নেতাকর্মীদের আহবান জানিয়ে সভা শেষ করেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.