দেশে এখন বিচার বিভাগের কোনো স্বাধীনতা নেই: তপু

রাজশাহী লীড

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : রাজশাহী জেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাড. তোফাজ্জল হোসেন তপু বলেছেন, ‘দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে সংলাপ বা নির্বাচন কোনোটাই ফলপ্রসূ হবে না। তার সাজা বাড়ানো গণতান্ত্রিক কোনো কার্যক্রমের প্রতিফলন ঘটায় না। আমাদের দুর্ভাগ্য যে, দেশে এখন বিচার বিভাগের কোনো স্বাধীনতা নেই। অবৈধ ও অনির্বাচিত সরকারের বিশেষ ভবনের নির্দেশে এখন বিচার বিভাগ চলছে। যা গণতন্ত্রের জন্য মারাত্মক হুমকি স্বরুপ।’ জিয়া চ্যারিটেবল এবং অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেওয়ার প্রতিবাদে গতকাল বুধবার বিকাল ৪টায় নগরীর অলোকার মোড়ে রাজশাহী জেলা বিএনপির মানববন্ধন সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্যে, গণতান্ত্রিক অধিকারগুলো ফিরে পাবার জন্য, ভোটের অধিকার ফিরে পাওয়ার জন্য, জনগণের অধিকার ফিরে পাওয়ার জন্য আমরা দীর্ঘকাল ধরে আন্দোলন করছি। আমরা সেজন্যই বলছি, অনুগ্রহ করে গণতন্ত্রের মধ্যে ফিরে আসুন এবং গণতান্ত্রিক পরিবেশ তৈরি করুন। এ সময় সরকারের পদত্যাগ, সংসদ বাতিল, নির্বাচন কমিশনকে পুনঃগঠন করে অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন, ইভিএম বাতিল, খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ সাত দফা দাবি দ্রুত মেনে নেওয়ার আহবান জানান তোফাজ্জল হোসেন তপু।

জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. গোলাম মোস্তফা মামুনের পরিচালনায় মানববন্ধন সমাবেশে বক্তব্য দেন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মুন্টু, সাবেক এমপি জাহান পান্না, জেলা বিএনপির সহসভাপতি অধ্যাপক জাহাঙ্গীর হোসেন, সামিউল ইসলাম মুন, মহানগর যুগ্মসম্পাদক মামুন-অর রশিদ, জেলা যুগ্ম সম্পাদক ডিএম জিয়াউর রহমান, রায়হানুল আলম, ওয়াদুদ হাসান পিন্টু, তাজমুল তান টুটুল, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক তোফায়েল হোসেন রাজু, সহ-দপ্তর সম্পাদক শামসুজ্জামান বাদশা, সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. নাসির উদ্দিন, পুঠিয়া বিএনপির সভাপতি আমিনুল হক মিন্টু, দুর্গাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম সাকলায়েন, সাধারণ সম্পাদক ইমাম হাসান ফারুক সুমন, পবা আহবায়ক শাজাহান আলী, যুগ্ম আহবায়ক আলী হোসেন, আব্দুর রাজ্জাক, কেশরহাট পৌর সভাপতি আলাউদ্দিন আলো, নওহাটা পৌর সাধারণ সম্পাদক মামুন সরকার জেড, চারঘাট উপজেলা সহ-সভাপতি আকবর হোসেন, বাঘা উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব আশরাফুদ্দৌলা, মহিলাদল সভানেত্রী রুখশানা বেগম টুকটুকি, জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নুসরাত এলাহী রিজভী, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম জনি, সিনিয়র সহ-সভাপতি সাহারিয়ার আমিন বিপুল, সহ-সভাপতি মিতুল, অরণ্য কুসুম, যুগ্মসম্পাদক পিয়স আলী ও আল-আমিন প্রমুখ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.