বিশ্বে করোনা রোগী ৬ কোটি ১৯ লাখের বেশি

আন্তর্জাতিক লীড

স্বদেশ বাণী ডেস্ক : নিয়ন্ত্রণে আসছে না বিশ্ব করোনা পরিস্থিতি। নতুন করে আরও ৬ লাখের বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৬ কোটি ১৯ লাখ ছাড়িয়েছে। প্রাণ ঝরেছে আরও প্রায় ১১ হাজার মানুষের। ফলে মৃতের সংখ্যা সাড়ে ১৪ লাখের দোরগোড়ায়। তবে অনেকটা পিছিয়ে সুস্থতার হার।

বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৬ লাখ ১৩ হাজার ১৪৬ জনের দেহে। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ কোটি ১৯ লাখ ৬৭ হাজার ৬৫৩ জনে। নতুন করে ১০ হাজার ৮১৮ জন মারা যাওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৪ লাখ ৪৮ হাজার ২৯১ জনে ঠেকেছে।

আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থতা লাভ করেছেন ৪ কোটি ২৭ লাখ ৮৪ হাজারের বেশি ভুক্তভোগী। এর মধ্যে গত একদিনেই বেঁচে ফিরেছেন ৩ লাখ ৯৭ হাজার ১৯৪ জন রোগী।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী এ পর্যন্ত ২১৮টি দেশ  অঞ্চলে ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

এর মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সবকটি অঙ্গরাজ্যেই দীর্ঘ হয়ে চলেছে করোনা রোগীর সংখ্যা। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৩৪ লাখ ৫৪ হাজার ২৫৪ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৭১ হাজার ২৬ জনের।

সংক্রমণের হারে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৯৩ লাখ ৫১ হাজার ২২৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৩৬ হাজার ২৩৮ জনের।

প্রাণহানিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ও সংক্রমণে তিনে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত করোনার শিকার ৬২ লাখ ৩৮ হাজারের বেশি। মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার ৯৯৮ জনের।

সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়া ফ্রান্সকে টপকে চারে  উঠেছে রাশিয়া।  যেখানে এখন পর্যন্ত করোনার ভুক্তভোগী ২২ লাখ ১৫ হাজার মানুষ। এর মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ৩৮ হাজার ৫৫৮ জন।

পাঁচে থাকা ফ্রান্সে এখন পর্যন্ত করোনা হানা দিয়েছে ২১ লাখ ৯৬ হাজারের বেশি মানুষের দেহে। এর মধ্যে প্রাণ ঝরেছে ৫১ হাজার ৯১৪ জনের।

ছয়ে  থাকা স্পেনে ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১৬ লাখ ৪৬ হাজার।  প্রাণহানি ঘটেছে ৪৪ হাজার ৬৬৮ জনের।

দ্বিতীয় তরঙ্গে মহামারি গতি বাড়ছে যুক্তরাজ্যে। এমতাবস্থায় নতুন করে চার সপ্তাহের লকডাউন চলছে সেখানে। এখন পর্যন্ত সেখানে করোনা হানা দিয়েছে ১৫ লাখ ৮৯ হাজারের বেশি মানুষের দেহে। এর মধ্যে প্রাণ ঝরেছে ৫৭ হাজার ৫৫১ জনের।

একইপথে ইউরোপের আরেক দেশ ইতালি। দ্বিতীয় দফায় ক্রমেই করোনা ভয়াবহ রূপ নেয়ায় গত ৬ নভেম্বর থেকে সেখানে লকডাউন জারি হয়েছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৫ লাখ ৩৮ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ৫৩ হাজার ৬৭৭ জনের। সুস্থতা লাভ করেছেন এক-তৃতীয়াংশ রোগী।

মেক্সিকোয় করোনার ভুক্তভোগী ১০ লাখ ৭৮ হাজারের বেশি। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৪ হাজার ২৪২ জনের। মৃত্যু হারে যা যেকোন দেশের তুলনায় সর্বোচ্চ।

এদিকে, বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী আজ শনিবার সকাল পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৫৮ হাজার ৭১১ জন মানুষ। এর মধ্যে ৩ লাখ ৭৩ হাজার ৬৭৬ জন সুস্থতা লাভ করলেও প্রাণহানি ঘটেছে ৬ হাজার ৫৪৪ জনের।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *