কেড়ে নেয়া হলো ট্রাম্পের ডক্টরেট ডিগ্রী

আন্তর্জাতিক

স্বদেশবাণী ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের লিহাই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দেয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রী কেড়ে নেয়া হয়েছে। ৩০ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির পক্ষ থেকে তাকে এই সম্মানসূচক ডিগ্রী দেওয়া হয়। সে সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাষণও দিয়েছিলেন ট্রাম্প।

ওয়াশিংটন পোস্ট ও সিবিসি নিউজ জানিয়েছে, ১৯৮৮ সালে লিহাই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ট্রাম্পকে দেয়া সম্মানসূচক ডিগ্রি শুক্রবার প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

এদিন এক বিবৃতিতে লিহাই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলেছে, ডোনাল্ড ট্রাম্পের ডিগ্রীটি বাতিল করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেয়নি তারা।

সম্প্রতি মার্কিন সংসদ ভবন ক্যাপিটল হিলে ট্রাম্প সমর্থকদের ব্যাপক হামলায় ও হতাহতের ঘটনার পর ট্রাম্প নিজ দেশে ক্রমেই আরও একঘরে হয়ে পড়ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় কেড়ে নেওয়া হলো তার সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রীও।

ক্যাপিটল হিলে সাম্প্রতিক হামলায় পুলিশসহ অন্তত ৫ জন নিহত হয়েছেন। হামলায় উসকানি দেওয়ার কারণে তাকে আইনি চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এছাড়া অভিশংসন করার পরিকল্পনাও চূড়ান্ত করতে যাচ্ছে ডেমোক্র্যাট নেতারা।

এর আগে টুইটার কর্তৃপক্ষ ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দিয়েছে। ট্রাম্প কিছু একটা হলেই সঙ্গে সঙ্গে টুইট করতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন। সমালোচকরা বলছেন, টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ হওয়ায় নিশ্চয় খুব খারাপ সময় যাচ্ছে ট্রাম্পের!

এরইমধ্যে তার নিজ দলের অনেক নেতা ট্রাম্পের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন এবং অভিশংসন বা ইমপিচমেন্টের পক্ষে মত দিয়েছেন। তার কাছ থেকে পরমাণু অস্ত্রের কোড কেড়ে নেয়ার দাবিও জোরালো হচ্ছে।

সাধারণ নিয়মে আগামী ২০ জানুয়ারি ট্রাম্পের ক্ষমতার মেয়াদ শেষ হতে যাচ্ছে। কিন্তু পাগলামির কারণে এর আগেই তার অপসারণ চাচ্ছেন বেশিরভাগ মার্কিন নাগরিক।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *