তালেবানের ২৮৪ জন নিহত, লড়াই চলছে ১৫ প্রদেশে

আন্তর্জাতিক লীড
স্বদেশবাণী ডেস্ক: আফগানিস্তানে সরকারি বাহিনী এবং তালেবানের মধ্যে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে হচ্ছে তীব্র লড়াই। এখনও ১৫ প্রদেশে তালেবানের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের সংঘর্ষ চলছে। এর মধ্যে শনিবারের আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে সংঘর্ষে তালেবানের ২৮৪ জন নিহত এবং দুই শতাধিক আহত হয়েছেন বলে দাবি করছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।
আফগানিস্তানের গণমাধ্যম টোলো নিউজ দেশটির সরকারি সংস্থা এবং নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তাদের বরাতে এ তথ্য জানায়।

খবরে বলা হয়, আফগানিস্তানের ন্যাশনাল সিকিউরিটি অ্যান্ড ডিফেন্স ফোর্স পারওয়ান প্রদেশের শেখ আলী জেলার নিয়ন্ত্রণ নিতে সক্ষম হয়েছে। শনিবার সরকারি বাহিনী এ জেলার নিয়ন্ত্রণ নেয়। অপরদিকে কান্দাহারের দান্দ জেলা দখলে নিয়েছে তালেবান।

নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তারা জানান, তালুকান শহর, মায়মানা শহর, কান্দাহার প্রদেশ এবং গজনি প্রদেশসহ দেশের ১৫ প্রদেশে তালেবানের সঙ্গে সরকারি বাহিনীর সংঘর্ষ চলছে।
তাখার প্রদেশের পুলিশ কমান্ডার খায়ের মুহাম্মদ তৈমুর বলেন, এটি শুধু তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ নয়। এটি এখন আঞ্চলিক ষড়যন্ত্রের কেন্দ্র হয়ে দাঁড়িয়েছে।  আমরা এর বিরুদ্ধে লড়ে যাব।
আফগান স্পেশাল ফোর্সের কমান্ডার ফিদা মুহাম্মদ বলেন, শত্রুদের হটিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের অনেকে হতাহত হয়েছে।
আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, শনিবারের আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশে বিভিন্ন এলাকায় সংঘর্ষে তালেবানের ২৮৪ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন দুই শতাধিক।
যদিও সরকারের পক্ষ থেকে ২৮৪ তালেবান নিহত হওয়ার যে পরিসংখ্যান দেওয়া হয়েছে তা প্রত্যাখ্যান করেছে সংগঠনটি।

পারওয়ান প্রদেশের গভর্নর ফজলুদ্দিন আইয়ার বলেন, আমাদের সামরিক অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে। এভাবে আমরা অন্য জেলাগুলোও পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাব।
যুক্তরাষ্ট্র সেনা প্রত্যাহার করার প্রক্রিয়ার শুরুর পর থেকে গত দুই মাসে দুশর বেশি জেলা দখলে নিয়েছে তালেবান। সশস্ত্র এ গোষ্ঠীটি দেশের বিভিন্ন এলাকার দখলে নিতে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে। সম্প্রতি তারা দেশের গুরুত্বপূর্ণ কিছু স্থলবন্দরও দখলে নিয়েছে। এ ছাড়া এ সংগঠনের দাবি, তাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে দেশটির ৮৫ শতাংশ এলাকা।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *