পঞ্জশিরে প্রতিবাদীকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

আন্তর্জাতিক

স্বদেশ বাণী ডেস্ক: দ্বিতীয়বার আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের সময় তালিবান জানিয়েছিল, প্রথম বারের নির্বিচার হিংসার পুনরাবৃত্তি হবে না এবার। এমনকি যারা তালিবান বিরোধী আন্দোলনে জড়িয়ে ছিলেন, তাদেরও ক্ষমা করে দেওয়া হবে। বাস্তবতা কিন্তু সে কথা বলছে না।

সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে একটি ভিডিও। অভিযোগ, এই সপ্তাহে পঞ্জশিরের একটি এলাকায় তালিবান-বিরোধী আন্দোলনে অংশ নেওয়ার অপরাধে এক ব্যক্তিকে দিনের আলোয় গুলি করে মারে তালিবান। পুরো ঘটনার ভিডিও রয়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, ওই ব্যক্তিকে গুলি করার পর তালিবান যোদ্ধারা একটি গাড়িতে করে বেরিয়ে যাচ্ছে।

সম্প্রতি ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি-কে একটি সাক্ষাৎকার দেন পঞ্জশিরের বাসিন্দা আবদুল সামি। তাকেও খুন করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তার অপরাধ, তিনি তালিবান-বিরোধী শক্তিকে মোবাইল ফোনের সিম কার্ড বিক্রি করেছিলেন। দুই সন্তানের বাবা আব্দুলকে পালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন গ্রামবাসীরা। কিন্তু আব্দুলের বিশ্বাস ছিল, তালিবান তাকে কিছু করবে না।

জানা যাচ্ছে, পঞ্জশির দখলের পরই আব্দুলকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতীরা। তারপর বাড়ি থেকে কিছু দূরে আব্দুলের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, মৃত্যুর আগে আব্দুলের উপর নৃশংস অত্যাচার করা হয়েছিল।

তালিবান বদলে গিয়েছে। দ্বিতীয় বার ক্ষমতা দখলের পর এই কথাই বলছিলেন তালিব নেতারা। কিন্তু ঘটনাচক্রে তালিবান যে তালিবানেই রয়েছে, তার সবচেয়ে বড় প্রমাণ পঞ্জশিরের এই ভিডিয়ও। সূত্র: আনন্দবাজার

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *