করোনা ঠেকাতে সোনার মাস্ক বানালেন ব্যবসায়ী

আন্তর্জাতিক

স্বদেশবাণী ডেস্ক: ২০২০ সালে করোনা মহামারির প্রকোপ শুরুর পর মাস্ক যেন বিশ্ববাসীর দৈনন্দিন জীবনের অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচার সহজ এই মাধ্যমটিকে এবার আক্ষরিক অর্থেই সোনায় মুড়িয়ে দিলেন এক ব্যবসায়ী। ঠিক সোনায় মোড়ানো নয়, সোনা দিয়েই মাস্ক তৈরি করলেন তিনি। আর এই মাস্ক বানাতে তার খরচ হয়েছে সাড়ে ছয় লাখ টাকারও বেশি।

১৫ দিনে তৈরি ওই গোল্ড মাস্কটির ওজন ১০৮ গ্রাম। মাস্কটি বানাতে খরচ পড়েছে পাঁচ লাখ ৭০ হাজার রুপি (বাংলাদেশি মুদ্রায় সাড়ে ৬ লাখ টাকার বেশি)।

ওই ব্যবসায়ীর নাম প্রকাশ হয়নি। সদ্য শেষ হওয়া শারদীয় দুর্গা পূজার সময় তিনি কলকাতার বিভিন্ন মণ্ডপে মাস্কটি পরে গিয়েছিলেন। তবে আশেপাশের মানুষের মধ্যে ব্যাপক কৌতুহল সৃষ্টি হওয়ায় মাস্কটি খুলে ফেলেন তিনি।

ওই ব্যবসায়ী গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন,তার সোনার তৈরি গহনার প্রতি দুর্বলতা আছে। তিনি গলায় বেশ কয়েকটি সোনার চেইন এবং দুই হাতে বেশ কয়েকটি আংটি পরেন। এছাড়া এক হাতে ব্রেসলেটও পরেন তিনি। আর সব গহনাই সোনার তৈরি বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভারতের নারী সাংবাদিক ঋতুপর্ণা চ্যাটার্জি টুইটারে ওই মাস্কের ছবি পোস্ট করার পর তা ভাইরাল হয়।  নেটিজেনরা অবশ্য মোটেও ভালোভাবে নেননি বিষয়টি। একে সম্পদের নগ্ন প্রদর্শনের সঙ্গে তুলনা করেছেন অনেকে। কেউ কেউ করোনা ঠেকাতে ওই মাস্কের কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

মাস্কের মাধ্যমে সম্পদ প্রদর্শনের অসুস্থ প্রতিযোগিতা এই প্রথম নয়। এর আগে ভারতের পুণের এক ব্যবসায়ী সোনা দিয়ে নিজের জন্য মাস্ক বানিয়ে নিয়েছিলেন।

অবশ্য মাস্কটি বানানো হয়েছিল ৫৫ গ্রাম সোনা দিয়ে। মাস্কটি বানাতে খরচ পড়েছিল দুই লাখ ৮৯ হাজার রুপি। এছাড়া ভারতের সুরাটের একটি গয়নার দোকানেও বিক্রি হচ্ছিল হীরার তৈরি মাস্ক।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *