ইউক্রেন যুদ্ধ: তেল আমদানিতে রাশিয়ার বিকল্প খুঁজছে ভারত

আন্তর্জাতিক লীড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রাশিয়া ধারাবাহিকভাবে কয়েকদিন ধরে ইউক্রেনে হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। এর জেরে পশ্চিমা বিশ্ব রাশিয়ার ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা জারি করছে। এমন পরিস্থিতিতে জ্বালানি তেলের দাম হু হু করে বাড়ছে। বিভিন্ন দেশ এরই মধ্যে তেল আমদানির ক্ষেত্রে রাশিয়ার বিকল্প খোঁজার চেষ্টা করছে। জানা গেছে, এ ক্ষেত্রে ভারত রাশিয়ার বিকল্প হিসেবে উপসাগরীয় দেশে নজর দিচ্ছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের রাষ্ট্রীয় তেল পরিশোধনকারী প্রতিষ্ঠান ভারত পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসিএল) এপ্রিল থেকে উপসাগরীয় দেশগুলো থেকে অতিরিক্ত তেল আমদানি করবে। রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমাদের নিষেধাজ্ঞার ফলে সরবরাহে সমস্যা দেখাত দিতে পারে এমন আশঙ্কায় দেশটি এ পদক্ষেপ নিচ্ছে।

বিপিসিএল হচ্ছে ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম তেল পরিশোধন প্রতিষ্ঠান। এটি মাসে গড়ে ২০ লাখ ব্যারেল রাশিয়ান তেল আমদানি করে। এক্ষেত্রে বিক্রেতা দেশই কার্গোসহ বিমার ব্যবস্থা করে। প্রতিষ্ঠানটি মার্চে ১০ লাখ ব্যারেল ও এপ্রিলে ৩০ লাখ ব্যারেল রাশিয়ান তেলের বুকিং দেয়।

ব্যবসায়ীরা বিদ্যমান প্রতিশ্রæতি রক্ষায় আগ্রহী, তবে ভবিষ্যতের সরবরাহ নিয়ে বিপিসিএলকে কিছু জানায়নি তারা। একটি সূত্র জানিয়েছে, এপ্রিলে পরিস্থিতি কেমন হবে তা কেউ জানে না। তাই ভারতীয় এ প্রতিষ্ঠানটি এখনই প্রস্তুতি নিতে চায়।

সূত্রটি জানায়, উপসাগরীয় তেল উৎপাদনকারী দেশগুলো বিপিসিএলের জন্য অতিরিক্ত সরবরাহের জন্য প্রতিশ্রæতিবদ্ধ হয়নি। যদিও এপ্রিলের বরাদ্দ আগামী সপ্তাহে চূড়ান্ত হওয়ার কথা রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে বিপিসিএল রাশিয়ান তেলের যেকোনো ঘাটতি পূরণের জন্য অন্যদিকে নজর দিতে চায়।

এদিকে ইউক্রেনে রাশিয়ান আগ্রাসনের শুরু থেকেই তেলের দাম বাড়ছে। কোনো পদক্ষেপেই নিয়ন্ত্রণে রাখা যাচ্ছে না এটির দাম।

আন্তর্জাতিক বেঞ্চমার্ক ব্রেন্ট ক্রুডের এক ব্যারেল তেলের দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১৩ ডলারে, যা গত সাত বছরের বেশি সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ। এর আগে আন্তর্জাতিক এনার্জি এজেন্সি ছয় কোটি ব্যারেল তেল বাজারে ছাড়াতে রাজি হয়। জরুরি মজুত থেকে এসব তেল ছাড়ার কথা। এর মধ্যে ফের তেলের দাম বাড়ার খবর এলো।

স্ব.বা/ রু

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *