রাজশাহীর পবায় কারিগরি বোর্ডের বেসিক ট্রেড কোর্সের কেন্দ্র বাসা বাড়িতে!

বিশেষ সংবাদ লীড শিক্ষা

স্টাফ রিপোর্টার:
বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৬ মাস মেয়াদী ৩৬০ ঘন্টার বেসিক ট্রেড কোর্সের ফাইনাল পরীক্ষা আগামীকাল ২৭ ডিসেম্বর শুক্রবার অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত পরীক্ষা রাজশাহীর পবায় ২টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে নওহাটায় ব্রাইটওয়ে কম্পিউটার সেন্টার একটি কেন্দ্র। কেন্দ্রটি এবছর অনুমোদন পায়। কিন্তু শর্ত অনুযায়ী এই কেন্দ্রটির কোন অবকাঠামো নাই। দুর্নীতির মাধ্যমে কেন্দ্রটির অনুমোদন নেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ব্রাইটওয়ে কম্পিউটার সেন্টার একটি বাসভবনের শুধুমাত্র ছোট ছোট ২টি রুমে দীর্ঘদিন থেকে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ পরিচালনা করে আসছে। এছাড়া এই সেন্টারটি নেই কোন পর্যাপ্ত ক্লাস রুম, কম্পিউটার ল্যাব, ওয়ার্কশপ, লাইব্রেরী ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা। এরপরেও সেন্টারটির পরিচালক সোহেল বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (শর্ট কোর্স) এর সাথে আতাঁত করে কেন্দ্রের অনুমতি নেন। কেন্দ্রের অনুমতি নিতে হলে নিয়ম অনুসারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অনুমতির সুপারিশসহ প্রতিবেদন প্রয়োজন হয়। কিন্তু এক্ষেত্রে এ নিয়ম মানা হয়নি।

নিয়ম অনুযায়ী কেন্দ্রের নিজস্ব স্থানে পরীক্ষা নিতে হবে। এখানে স্থান সংকুলান না হলে স্থানীয় প্রশাসন কোথায় বাকি পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে তা নির্বাচন করে চিঠি দিবেন। এই নিয়মকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ব্রাইটওয়ে কম্পিউটার সেন্টারের পরিচালক নিজের উদ্যোগে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (শর্ট কোর্স) এর সাথে আতাঁত করে নওহাটা সরকারী ডিগ্রী কলেজে ভেন্যু কেন্দ্র করেছেন। তার নিজস্ব কম্পিউটার সেন্টারে কোন পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে না। এ ব্যাপারে নওহাটা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আ. খালেক জানান, এখানে ভেন্যু কেন্দ্র করার অনুমতি নিয়েছে ব্রাইটওয়ে কম্পিউটার সেন্টারের পরিচালক। কিন্তু কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (শর্টকোর্স) কারো বরাবর ভেন্যুকেন্দ্র নির্বাচনের অনুমতি দেননি।

এ ব্যাপারে ব্রাইটওয়ে কম্পিউটার সেন্টারের পরিচালক সোহেলের সাথে মুঠোফোনে বেশ কয়েকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে পবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহাদত হোসেন বলেন, আমার লিখিত সুপারিশ ছাড়া কিভাবে কেন্দ্রের অনুমতি পেল জানি না। এটা যদিও কারিগরি শিক্ষাবোর্ড করে তারপরেও আমি উপজেলার প্রশাসনিক কর্মকর্তা হিসেবে এটা কেন্দ্র নিতে আমার লিখিত সুপারিশ দরকার ছিল। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে তিনি জানান।

স্ব.বা/বা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *