উড়িষ্যা-অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে গুলাবের আঘাত, নিহত ২

আন্তর্জাতিক লীড

স্বদেশবাণী ডেস্ক: ভারতের উড়িষ্যা ও অন্ধ্রপ্রদেশের উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’। ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীকাকুলামে জেলেদের একটি নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত দুই জেলে নিহত ও চারজন নিখোঁজ হয়েছেন। এ খবর আনন্দবাজারের।
দেশটির আবহাওয়া বিভাগ (আইএমডি) জানিয়েছে, রোববার রাতে ঘূর্ণিঝড় গুলাবের অগ্রভাগ অন্ধ্রপ্রদেশের উপকূলীয় এলাকার স্থলভাগে পৌঁছে। রাত সাড়ে ১০টার দিকে অন্ধ্রপ্রদেশের উত্তর উপকূল এবং তৎসংলগ্ন দক্ষিণ উপকূলীয় উড়িষ্যায় ঘণ্টায় ৬৫ থেকে ৭৫ কিলোমিটার গতিতে আছড়ে পড়ছে ঘূর্ণিঝড় গুলাব।
আগামী তিন থেকে চার ঘণ্টার মধ্যে ঘূর্ণিঝড়টি অন্ধ্রপ্রদেশের কলিঙ্গপত্তনম ও উড়িষ্যার গোপালপুর অতিক্রম করতে পারে। এর প্রভাবে আগামী দুইদিন অর্থাৎ সোম ও মঙ্গলবার তেলেঙ্গানায় ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে।
শ্রীকাকুলামে গুলাবের দাপটে নিয়ন্ত্রণ হারিয়েই উল্টে যায় জেলেদের একটি নৌকা। এতে ছয় মৎস্যজীবী নিখোঁজ হন। পরে এদের মধ্যে দু’জনের মৃতদেহ উদ্ধার করে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। বাকিদের এখনও খোঁজ পাওয়া যায়নি।
ঘূর্ণিঝড়টি স্থলভাগে আঘাত হানার পর থেকেই অন্ধ্রের শ্রীকাকুলামে শুরু হয় ঝড়। কলিঙ্গপত্তনমের জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মোট ৬১টি ত্রাণ শিবির তৈরি করা হয়েছে। সেখানে আশ্রয় নিয়েছেন ১ হাজার ১০০ জন।
তেলঙ্গানার মুখ্যসচিব সংশ্লিষ্ট দফতরের সমস্ত সরকারি কর্তাদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। বিশেষ কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। আবহাওয়া দফতর উত্তর তেলঙ্গানায় লাল সতর্কতা এবং দক্ষিণ অংশে কমলা সতর্কতা জারি করেছে।
এদিকে, ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই’র বরাত দিয়ে আনন্দবাজার জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড় গুলাব অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে ক্রমশ পশ্চিম দিকে সরতে শুরু করেছে। আপাতত উত্তর অন্ধ্রপ্রদেশের উপকূল অঞ্চলে অবস্থান করছে গুলাবের কেন্দ্র। সেখানে বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ ৮৫ কিলোমিটার। আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যে বাতাসের গতিবেগ কিছুটা কমতে পারে।
উড়িষ্যার গাঞ্জাম জেলার বিশেষ ত্রাণ কমিশনার পি কে জিনা জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে প্রাণহানি এড়াতে উড়িষ্যা উপকূল থেকে অন্তত ১৬ হাজার মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *