১৭০ বছরের ইতিহাস ভাঙলো রয়টার্স

গণমাধ্যম লীড

স্বদেশবাণী ডেস্ক: আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স তাদের ১৭০ বছরের ইতিহাসে প্রথম নারী প্রধান সম্পাদক পেতে যাচ্ছে। আগামী সোমবার থেকে ইতালিয়ান আলেসান্দ্রা গ্যালোনিকে এ পদে দেখা যাবে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থাটি।

রয়টার্সের বার্তাকক্ষকে নেতৃত্ব দেওয়া স্টিফেন জে. অ্যাডলারের স্থলাভিষিক্ত হতে যাচ্ছেন ৪৭ বছর বয়সী গ্যালোনি। চলতি মাসেই অবসরে যাচ্ছেন সম্পাদক অ্যাডলারে। তার নেতৃত্বে বার্তা সংস্থাটি সাংবাদিকতা বিষয়ক কয়েকশ’ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছে, যার মধ্যে আছে সাতটি পুলিৎজার; যা এই শিল্পের সর্বোচ্চ সম্মান।

গ্যালোনি বর্তমানে রয়টার্সের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় একজন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল রয়টার্সের ইতালিয়ান ভাষার নিউজ সার্ভিসে। হার্ভার্ড ও লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিকস থেকে ডিগ্রি নেওয়া এ নারী ওয়াল স্ট্রিট জার্নালেও প্রায় ১৩ বছর কাজ করেছেন।

২০১৩ সালে তিনি রয়টার্সে ফেরেন। রোমে বেড়ে ওঠা গ্যালোনি চারটি ভাষায় পারদর্শী। রয়টার্স ছাড়াও তিনি দীর্ঘদিন ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে কাজ করেছেন। ব্যবসা ও রাজনীতি সংক্রান্ত প্রতিবেদন ও সংবাদ সম্পাদনায় তার অভিজ্ঞতা বিস্তর।

রয়টার্স যখন নানামুখী চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি, তখন সংবাদ সংস্থাটির নেতৃত্ব গ্রহণ করতে যাচ্ছেন গ্যালোনি। বর্তমানে বিশ্বজুড়ে রয়টার্সের প্রায় ২ হাজার ৫০০ সাংবাদিক আছেন। ২০০৮ সাল থেকে থমসন কর্পোরেশনের অংশ রয়টার্স।

প্রধান সম্পাদক হিসেবে নাম ঘোষণার পর এক প্রতিক্রিয়ায় গ্যালোনি বলেন, ‘১৭০ বছর ধরে রয়টার্স স্বতন্ত্র, বিশ্বস্ত বৈশ্বিক প্রতিবেদনের মান নির্ধারণ করেছে। প্রতিভাবান, নিবেদিত ও অনুপ্রেরণাদায়ী সাংবাদিকদের নিয়ে গঠিত এর বিশ্বমানের বার্তা-কক্ষের নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ পেয়ে আমি সম্মানিত।’

প্রধান সম্পাদকের চেয়ারে বসার পর অনেকগুলো চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে তাকে। এর মধ্যে কিছু চ্যালেঞ্জ বর্তমান বাস্তবতায় সব গণমাধ্যমকেই মোকাবেলা করতে হচ্ছে। এর বাইরে বিস্তৃত ও জটিল সাংগঠনিক কাঠামো পরিচালনার ভার তো থাকছেই।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *