ওড়াকান্দিতে উলুধ্বনি, ডঙ্কা-কাসা বাজিয়ে স্বাগত জানানো হবে মোদিকে

জাতীয়

স্বদেশবাণী ডেস্ক: বাংলাদেশে মতুয়া সম্প্রদায়ের তীর্থভূমি গোপালগঞ্জের ওড়াকান্দিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমন ও মন্দির পরিদর্শনের সংবাদে এই সম্প্রদায়সহ স্থানীয়দের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা। তিনি আসার পর উলুধ্বনি, শঙ্খ ও ডঙ্কা-কাসা বাজিয়ে তাকে স্বাগত জানানোর সব আয়োজনই সম্পন্ন করা হচ্ছে ঠাকুর বাড়ির পক্ষ থেকে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন জানিয়েছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আগামী ২৬ মার্চ ঢাকা আসবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। বাংলাদেশ সফরের সময় তিনি বাংলাদেশের দু’টি মন্দির পরিদর্শন করবেন। মন্দির দু’টি হচ্ছে গোপালগঞ্জের ওড়াকান্দিতে মতুয়া সম্প্রদায়ের হরিচাঁদ-গুরুচাঁদ মন্দির এবং সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার ঈশ্বরীপুর গ্রামে অবস্থিত যশোরেশ্বরী কালী মন্দির।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাষ্ট্রাচার অণুবিভাগ জানিয়েছে, ভারতের প্রধানমন্ত্রী সফরের দ্বিতীয় দিন ২৭ মার্চ সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে টুঙ্গিপাড়া যাবেন। সেখানে তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধ পরিদর্শন, পুষ্পস্তবক অর্পণ ও গাছের চারা রোপণ করবেন। এরপর বেলা ১১ টা ৩৫ মিনিটে যাবেন কাশিয়ানীর ওড়াকান্দি মন্দির পরিদর্শনে। শ্রী শ্রী হরিচাঁদ ঠাকুর মতুয়া সম্প্রদায়ের প্রধান পুরুষ এবং তিনি এ মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন।

স্থানীয় ভাবে এ সম্প্রদায়ের লোকজন এবং স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে ,ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রমোদির আগমন উপলক্ষে গোপালগঞ্জের নিভৃত গ্রাম ওড়াকান্দিতে তৈরি হচ্ছে ৪টি পৃথক হেলিপ্যাড। সংস্কার করা হচ্ছে রাস্তাঘাট। বাড়ী ঘরে চলছে রং-চুনকামসহ অন্যান্য সংস্কার কাজ। ঠাকুরের বেশ কয়েকজন ভক্ত এরই মধ্যে ঠাকুরবাড়ি এসেছেন এটি পরিষ্কার-পরিচ্ছছন্ন করার কাজে সাহায্য করতে। বেশকিছু মতুয়া ভক্ত স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে ঠাকুরবাড়ী পরিস্কার পরিছন্নতার কাজে নেমে পড়েছেন, গত এক সপ্তাহে নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে কাজ করার পর সংস্কার কাজ প্রায় শেষ।

কাশিয়ানি উপজেলা প্রকৌশলী হাবিবুর হাবিব জানান, ওড়াকান্দি হরিচাঁদ ঠাকুরের বাড়িতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরকে ঘিরে জরুরি ভিত্তিতে ৪টি হেলিপ্যাড, ঠাকুর বাড়ির অভ্যন্তরে ৫শ’ মিটার এইচবিবি সড়ক, ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের তিলছড়া থেকে ঠাকুর বাড়ি পযর্ন্ত ৮ কিলো মিটারের বেশি পাকা সড়ক সংস্কার করা হচ্ছে। এছাড়া, তিলছড়া রাহুথর সড়ক থেকে ঠাকুর বাড়ি প্রবেশের জন্য ৬শ’ মিটার পাকা সড়ক সংস্কার কাজ চলছে।

কাশিয়ানীর ইউএনও রথীন্দ্রনাথ রায় বলেন, ‘আমরা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ওড়াকান্দি ভ্রমণের কর্মসূচি পেয়েছি। আমরা তার ভ্রমণের প্রস্তুতি শুরু করেছি। গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা জানিয়েছেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ সফর সম্পর্কে তাকে জানিয়েছে। বিদেশি ভিভিআইপির জন্য যে ধরনের প্রস্তুতি থাকা প্রয়োজন তা তারা নিয়েছেন।

ঠাকুরবাড়ির অন্যতম সেবাইত পদ্মনাভ ঠাকুর বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদির সফরকে কেন্দ্র করে সেখানে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতাসহ নানা আয়োজন শুরু হয়েছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টার থেকে নামার পর হরিচাঁদ-গুরুচাঁদ ঠাকুরের মন্দিরে আসবেন। সেখানে পূজা শেষে মন্দিরের সামনেই ঠাকুরবাড়ির সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন। ঠাকুরবাড়ির আরেক সদস্য কাশিয়ানী উপজেলা চেয়ারম্যান সুব্রত ঠাকুর হিটলু জানান, নরেন্দ্র মোদিকে যথাযথ সম্মানের সঙ্গে বরণ করার প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন তারা। মোটকথা, একজন গুরুত্বপূর্ণ অতিথিকে বরণ করার জন্য তারা সাধ্যমত প্রস্ততি নিচ্ছেন ।

বাংলাদেশ মতুয়া মহাসংঘের সভাপতি সীমা দেবী ঠাকুর বলেন, ‘ভারতের প্রধানমন্ত্রী আমাদের এই ঠাকুরবাড়িতে আসছেন, এটা শুধু ঠাকুরবাড়ির গর্বের বিষয় নয়, সকল মতুয়ার কাছে গর্বের বিষয়। তিনি এলে আমরা হিন্দুধর্মীয় মতে উলুধ্বনি, শঙ্খ ও ডঙ্কা-কাশি বাজিয়ে তাকে স্বাগত জানানোর সব আয়োজনই রেখেছি।’- বাসস

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *