‘বিএইচবিএফসির অনুমোদিত মূলধন ১ হাজার কোটি টাকা করা হবে’

জাতীয়

স্বদেশবাণী ডেস্ক : অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানিয়েছেন, দেশবাসীর আবাসন চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশনের (বিএইচবিএফসি) অনুমোদিত মূলধনের পরিমান বৃদ্ধি করে ১০০০ কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ৫০০ কোটি টাকা করা হবে।

রোববার (৭ নভেম্বর) পূর্বানী হোটেলে বিএইচবিএফসির ঋণের কিস্তি পরিশোধে সোনালী ই-সেবার অনলাইন জমা ব্যবস্থার উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিএইচবিএফসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আফজাল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের কম্পট্রোলার এন্ড অডিটর জেনারেল মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী, অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব শেখ মোহাম্মদ সলীম উল্লাহ, সোনালী ব্যাংক পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান সিদ্দিকী, বিএইচবিএফসির পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. সেলিম উদ্দিন প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

তিনি বলেন, আবাসন খাতে দিন দিন চাহিদা বাড়ছে, সেই চাহিদা পূরণে মূলধন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জাতীয় সংসদে এ সংক্রান্ত একটি আইন পাস করার প্রক্রিয়ায় রয়েছে। তিনি বলেন, আশা করা যায় আইনটি পাশ হলে বিএইচবিএফসির অনুমোদিত মূলধনের পরিমান ১০০০ কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধনের পরিমান ৫০০ কোটি টাকা হবে।

মুস্তফা কামাল বলেন, বিএইচবিএফসির ঋণের কিস্তি অনলাইনে জমা করার ব্যবস্থা চালু করা নি:সন্দেহে একটি মহতী উদ্যোগ। এর ফলে গ্রাহক সেবা সহজ ও দ্রুত হবে। সোনালী ই-সেবা পদ্ধতিটি ডিজিটাল বাংলাদেশ প্লাটফর্মের অনন্য সংযোজন বলে তিনি মন্তব্য করেন।

তিনি আরও বলেন, উপযুক্ত গ্রাহক নির্বাচন করে ঋণ প্রদান ও নিয়মিতভাবে ঋণ আদায়ের সাফল্য বিএইচবিএফসির ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বস্তিবাসীদের জন্য স্বল্পমূল্যে ফ্লাট নিমার্ণ, সরকারি কর্মচারীদের জন্য গৃহঋণ এবং গৃহহীন জনসাধারণের জন্য আশ্রয়নসহ সকল স্তরের মানুষের জন্য গৃহ ঋণের সংস্থান করেছেন। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন, ‘মুজিব বর্ষে আমাদের লক্ষ্য, একজন মানুষও ঠিকানা বিহীন থাকবে না, গৃহহারা থাকবে না’।

বিএইচবিএফসির ঋণের কিস্তি অনলাইনে জমা করার ব্যবস্থা চালু হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির ঋণের কিস্তিসহ সব রকম বিক্রয়যোগ্য ফরমের মূল্য ও সরকার নির্ধারিত ফি এখন যেকোন স্থান থেকে তাৎক্ষণিক পরিশোধ করা যাবে। সোনালী ব্যাংকের সোনালী ই-সেবা পেমেন্ট গেটওয়ে থেকে গ্রাহকের নিজ একাউন্টের টাকা স্থানান্তর, ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড অথবা মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে জমা দেওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে। জমা পরবর্তীতে জমাকৃত অর্থের তথ্য এবং বিদ্যমান ঋণ স্থিতির তথ্য তাৎক্ষণিকভাবে অটো জেনারেটেড ভাউচার এবং এসএমএস এর মাধ্যমে গ্রাহক জানতে পারবেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *