খালেদা জিয়ার জন্য দেশেই ভালো চিকিৎসক আছে: তথ্যমন্ত্রী

জাতীয় লীড

স্বদেশবাণী ডেস্ক: তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বাংলাদেশেই উন্নতমানের চিকিৎসা হচ্ছে। দেশেই খালেদা জিয়ার জন্য ভালো চিকিৎসক রয়েছেন। তার পরিবার, রাজনৈতিক দল যেভাবে চায়-সেভাবেই চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। দেশে অনেক ভালো ভালো ডাক্তার রয়েছেন। মেধাবী দক্ষ চিকিৎসকের চিকিৎসায় খালেদা জিয়া সুস্থ হয়ে উঠবেন। আমরা আশা করছি, তিনি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরবেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে জহুর হোসেন চৌধুরী হলরুমে ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিল (ডিএসইসি) মেধাবৃত্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, বিএনপির ফখরুল ইসলাম যে কথা বলেছেন-আমাদের এ সরকারকে টেনেহিঁচড়ে নামিয়ে ফেলবেন। আমি বলতে চাই, সাড়ে ১২ বছরে আপনারা এ সরকারকে রশি দিয়ে টেনেহিঁচড়ে নামাতে চেয়েছিলেন-ফলে নিজেদের রশিই ছিঁড়ে গেছে। সরকারকে আরও টেনেহিঁচড়ে নামাতে চাইলে শুধু রশি নয়-আপনারাই নিচে পড়ে যাবেন। নিজেরাই একেবারে নিচে পড়বেন।

রামপুরার ঘটনা নিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, একটি শ্রেণি ছাত্রদের রাজনৈতিক ঢাল হিসাবে ব্যবহার করছে। রামপুরার ঘটনাও তেমন ঘটনা বলেই জানতে পেরেছি। দেশে কিছু পরগাছা আছে, তারা রাজনৈতিক সহিংসতা বৃদ্ধি করতেই এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। আমি ছাত্রদের বলব, ঢাকায় আমরা হাফ ভাড়ার ব্যবস্থা করেছি, চট্টগ্রামেও আলোচনা চলছে। তোমরা সবাই রাজপথ ছেড়ে ক্লাসে ফিরে যাও। করোনায় পড়াশোনার অনেক ক্ষতি হয়েছে। আর সময় নষ্ট করা যাবে না, সবাই ক্লাসে যাও। পড়াশোনা করে দেশ ও দেশের কল্যাণে নিবেদিত হও। মনে রাখতে হবে, তোমাদের মা-বাবা কষ্ট করে পড়াশোনা করাচ্ছেন। নিজে মানুষের মতো মানুষ হয়ে মা-বাবার সর্বোচ্চ সেবা করবে। আদর্শ মানুষ হয়ে নিজেকে গড়বে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় সংসদ-সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মো. মোজাফফর হোসেন বলেন, গণমাধ্যমে সাব-এডিটরসদের গুরুত্বও অপরিসীম। রিপোর্টারদের সংবাদগুলো অলংকার করে তোলেন তারা। তাদের কল্যাণেও সরকার এগিয়ে আসবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমাধ্যমকর্মীদের সহায়তা করছেন।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় যুগান্তর সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম বলেন, মেধার স্বীকৃতিকে স্বাগত জানাই। পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র-প্রতিটি স্তরে মেধার স্বীকৃতি দিতে হবে। মেধাশূন্য জাতি নিয়ে চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা যাবে না। অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হলেও জাতি ও রাষ্ট্র সম্মানজনক জায়গায় প্রতিষ্ঠিত হবে না। কাজেই প্রয়োজনে শিক্ষাব্যবস্থা ঢেলে সাজাতে হবে। তিনি সাব-এডিটরস কাউন্সিলকে ধন্যবাদ জানান এমন শুভ একটি উদ্যোগ গ্রহণের জন্য।

বিশেষ অতিথি আওয়ামী লীগ উপকমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার বলেন, জামায়াত-বিএনপি ও বিরোধী শক্তি শিক্ষাঙ্গনেও নৈরাজ্য করছে। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে হাতিয়ার বানাতে চাচ্ছে। আমরা শিক্ষার্থীদের ন্যায্য দাবির সঙ্গে একমত। বর্তমান সরকার শিক্ষাসহ সর্বক্ষেত্রে উন্নয়ন করছে, বিরোধী শক্তি তা চোখে দেখছে না। গণমাধ্যমকর্মীদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানিয়ে তিনি আরও বলেন, গণমাধ্যমকর্মীদের পাশে থাকতে চাই সব সময়। কারণ, তারাই দেশের আয়না।

অনুষ্ঠানে ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিলের সদস্যদের সন্তানদের মধ্যে মেধাবৃত্তির পুরস্কার দেওয়া হয়। সংগঠনের সভাপতি মামুন ফরাজীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বিশেষ অতিথি ছিলেন-সাম্প্রতিক দেশকাল সম্পাদক ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ, কেএসবি গ্রুপ অব কোম্পানির চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ এ হোসাইন দীপু। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন-প্রবীণ সাংবাদিক তরুণ তপন চক্রবর্তী, কায়কোবাদ মিলন, মোতাসিন বিল্লাহ, গাজী আব্দুল হাই, আবু হাসান হৃদয়। অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মধ্যে গান করেন সিফাত আহমেদ, কবিতা পাঠ করেন ফাহমিদা নওশিন মোনতাহা। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন শিক্ষার্থী সিয়াম, ঋতি রহমান প্রমুখ।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *