চতুর্থ শ্রেণির এক শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণচেষ্টায় শিক্ষক কারাগারে

জাতীয় লীড
শেরপুর সংবাদদাতাঃ ৩ এপ্রিল রোববার বিকেলে মামলার একমাত্র আসামি ওই রুহুল আমিন (৪০) নামে শিক্ষককে ফের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।শেরপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন জানালে উভয়পক্ষের শুনানী শেষে ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) মো. আখতারুজ্জামান তা নাকচ করে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। রুহুল আমিন নকলা উপজেলার বড়ইতার গ্রামের মৃত কাশেম আলীর ছেলে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি এ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু।
উল্লেখ্য, গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় শেরপুর শহরের সজবরখিলা সাতানিপাড়া মহল্লার এক ব্যবসায়ীর কন্যা ও স্থানীয় এসএম মডেল স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ওই শিশু শিক্ষার্থীকে একই স্কুলের শিক্ষক রুহুল আমিন প্রাইভেট পড়াতে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে ওই শিশু শিক্ষার্থীর চিৎকারে পরিবারের লোকজন এগিয়ে গেলে ওই শিক্ষক দৌড়ে পালিয়ে যায়। ওই ঘটনায় শিশু শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে রুহুল আমিনকে একমাত্র আসামি করে সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে রাতেই অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে সদর থানার পুলিশ। পরদিন আদালতে ভিকটিমের জবানবন্দি গ্রহণ করা হয়। ঘটনাটি নিয়ে সৃষ্টি হয় ব্যাপক চাঞ্চল্য। ফলে এসএম মডেল স্কুল থেকে ওই শিক্ষককে অব্যাহতি দেয় কর্তৃপক্ষ।
এদিকে ওই মামলায় পুলিশ তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। অন্যদিকে চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারি রুহুল আমিন দায়রা আদালত থেকে পুলিশ রিপোর্ট দাখিল পর্যন্ত অর্ন্তবর্তীকালীন জামিনে মুক্তি পেলেও পুলিশ রিপোর্ট দাখিল হওয়ার পর গত ২৪ মার্চ নিম্ন আদালতে হাজির না থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আদেশসহ মামলাটি বিচারের জন্য নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বদলি করা হয়। অবশেষে ৩ এপ্রিল রোববার তিনি ট্রাইব্যুনাল আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *