যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ৪৩০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি ইরানের

আন্তর্জাতিক জাতীয় লীড

স্বদেশ বাণী ডেস্ক: ইরানের কয়েকজন পরমাণু বিজ্ঞানী হত্যার ঘটনায় ইসরায়েলকে সহযোগিতা করায় মার্কিন প্রশাসন ও যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে দোষী সাব্যস্ত করেছে ইরানের একটি আদালত। এজন্য ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৪৩০ কোটি ডলার দিতে ওয়াশিংটনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।দেশটির নিহত তিন পরমাণু বিজ্ঞানীর পরিবারের সদস্যরা মার্কিন প্রশাসন ও যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তেহরানের আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।

এসব হত্যাকান্ড ইসরায়েল বাস্তবায়ন করলেও যুক্তরাষ্ট্র তাতে সক্রিয় সহযোগিতা করেছে বলে অভিযোগ করেছে ইরান। হত্যাকান্ডের ফলে পরমাণু বিজ্ঞানীদের পরিবারের সদস্যরা শারীরিক, মানসিক ও আর্থিকভাবে মারাত্মক ক্ষতির শিকার হয়েছেন। এসব বিজ্ঞানীর পরিবারের সদস্যদের অনেকে হামলায় সরাসরি আহতও হয়েছেন।মামলার রায়ে আদালত বলেছে, আন্তর্জাতিক দায়-দায়িত্ব, নিয়ম-কানুনের লঙ্ঘন এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ইসরায়েলের সন্ত্রাসবাদের প্রতি মার্কিন সমর্থনের উদাহরণ বন্ধ করতে বাদী পক্ষ এই মামলা করেছে।

মামলায় ৩৭ জন মার্কিন নাগরিককে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে যার মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও ডোনাল্ড ট্রাম্পও রয়েছেন। এছাড়া সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও, সাবেক ইরান বিষয়ক মার্কিন দূত ব্রায়ান হুক এবং সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাশ্টোর কার্টারের নামও রয়েছে।

মামলার রায়ে বলা হয়েছে, ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানীদের হত্যার জন্য ইসরায়েলের জড়িত থাকার প্রমাণ নিশ্চিত হওয়া গেছে এবং হত্যাকান্ড বাস্তবায়নে যুক্তরাষ্ট্র অর্থনৈতিক ও সামরিক সহযোগিতা দিয়েছে। একটি সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্র হিসেবে ইসরায়েল প্রতিষ্ঠায় যুক্তরাষ্ট্রের কার্যকর ভূমিকা রয়েছে। এছাড়া মার্কিন কংগ্রেস ইসরায়েলের সমর্থনে বেশ কয়েকটি আইনও পাস করেছে।

গত কয়েক বছরে ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানীরা ইসরায়েল ও পশ্চিমা দেশগুলোর গুপ্তচরদের হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছেন। ২০১০ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে ইরানের চার পরমাণু বিজ্ঞানী মাসুদ আলী মোহাম্মাদি, মাজিদ শাহরিয়ারি, দারিউশ রেজায়িনেজাদ এবং আহমাদি রোশান গুপ্তহত্যার শিকার হন।

এছাড়া পরমাণু বিজ্ঞানী ফেরেইদুন আব্বাসি সন্ত্রাসী হামলায় আহত হন। গুপ্তহত্যার ধারাবাহিকতায় ২০২০ সালের ২৭ নভেম্বর ইরানের আরেক পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদে নিহত হন। এইহত্যাকান্ডের পর ইরানি কর্মকর্তারা জানান, ইসরায়েল মূলত যুক্তরাষ্ট্রের গুপ্তচর হিসেবে কাজ করেছে এবং খ্যাতিমান পরমাণু বিজ্ঞানীকে হত্যা করেছে। সর্বশেষ সন্ত্রাসী হামলায় গত ২২মে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসির কর্নেল হাসান খোদায়ি নিহত হন।

স্ব.বা/ রু

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *