রাজশাহীতে ‘‘ ইন্টারনেট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সদ্ব্যবহার’’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্টিত

রাজশাহী লীড

তথ্যবিবরণী:

‘‘ইন্টারনেট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করতে প্রচার কার্যক্রম শক্তিশালীকরণ’’ কর্মসূিচর কৌশল নির্ধারণ ও উন্নয়ন বিষয়ক দিনব্যাপি কর্মশালা আজ আঞ্চলিক তথ্য অফিস রাজশাহীর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের উদ্যোগে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো: জাকির হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

অন্যান্যের মধ্যে গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের (প্রচার ও সমন্বয়) কর্মসূচির পরিচালক মো: তৈয়ব আলী ও আঞ্চলিক তথ্য অফিস, রাজশাহীর সিনিয়র তথ্য অফিসার ফারুক মো: আব্দুল মুনিম বিশেষ অতিথি এবং রাজশাহী প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো: আলী হোসেন বিশেষ বক্তা হিসেবে বক্তৃতা করেন। সভায় রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ১৬ জেলার জেলা তথ্য কর্মকর্তাবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন। রাজশাহী জেলা তথ্য অফিসের উপ-পরিচালক মহা: শামসুজ্জামান এতে সভাপতিত্ব করেন।

প্রধান অতিথি বলেন, সাইবার ক্রাইমের ভয়াবহতা সম্পর্কে সকল শ্রেণি ও পেশার মানুষকে অবহিত ও সচেতন করতে হবে। গণযোগাযোগ অধিদপ্তর সাইবার নিরাপত্তা আইন, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ, নারীর ক্ষমতায়ন, খাদ্যে ভেজাল প্রতিরোধ, নিরাপদ সড়ক ব্যবহার, পথচারীদের ও যানবাহন চালকদের ট্রাফিক আইন মেনে চলার বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি ও উদ্বুদ্ধকরণে প্রচার কার্যক্রম আরও শক্তিশালী ও গতিশীল করার নির্দেশ দেন। তিনি ফেসবুক ব্যবহারে নিজেদেরকে সতর্কতা অবলম্বন করার উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, গণযোগাযোগ অধিদপ্তর এখন সাতটি বিষয়ে প্রত্যন্ত অঞ্চলে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করছে।

কর্মশালায় ইন্টারনেট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সদ্ব্যবহার এবং সাইবার ক্রাইম আইন মেনে চলার উপর বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। বক্তাগণ বলেন, ইন্টারনেট এর অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউব, ইমু, ম্যাসেঞ্জার ও অন্যান্য সেলুলার ডিভাইস, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে অবহিত করতে হবে। তাঁরা বলেন, ইন্টারনেট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সদ্ব্যবহার সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধি এবং দেশের উন্নয়ন, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি অর্জনের লক্ষ্যে ব্যক্তিক, পরিবারিক, সামাজিক ও রাষ্টীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকারকে সহায়তা প্রদান করতে হবে। বক্তাগণ বলেন, কারো ব্যক্তিগত পাসওয়ার্ড, পিন কোড, এনআইডি, ও জন্মতারিখ কোনভাবেই কারো সাথে শেয়ার করা যাবে না। এছাড়াও তথ্য অধিকার আইন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বিষয়ে সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।

কর্মশালায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে তরুণ সমাজকে সচেতন এবং তাদেরকে সাইবার নিরাপত্তা আইন মেনে চলার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয়। গণযোগাযোগ অধিদপ্তর রাজশাহীর উদ্যোগে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মশালায় সকল কর্মকর্তাদেরকে জানানো হয় যে, সরকার গণগযোগাযোগ অধিদপ্তরের কার্যক্রমের ওপর সন্তোষ প্রকাশ করে। তিনি বলেন, সরকার এ অধিদপ্তরের প্রচার কার্যক্রম আরো জোরদার ও গতিশীল করার লক্ষ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে ।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.