বাঘায় এসি ল্যান্ডকে মারধরের মামলায় ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

রাজশাহী লীড

বাঘা প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাঘায় অবৈধভাবে বালি উত্তোলনে বাঁধা দেওয়ায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) পি এম ইমরুল কায়েসসহ দুই কর্মচারিকে মারধরের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (১৯-০১-১৯) রাতে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো-উপজেলার হরিরামপুর গ্রামের আব্দুল গনির ছেলে আবুল বাসার (৩০),কাশেম আলীর ছেলে বেলাল (৪০), উপজেলার আলাইপুর গ্রামের শহিদুল মল্লিকের ছেলে মিনারুল ইসলাম (২২), আজাহার আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম কালু (৪৮), নইমুদ্দিন দুই ছেলে নবাব আলী (৩৭) ও কামরুজ্জামান (৩৫) ও কলিগ্রামের নেকা ভাংড়ির ছেলে সুলতান আলী (৩৫)। চেইন ম্যান শামসুল ইসলাম বাদি হয়ে কয়েকজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে এ মামলাটি দায়ের করেছেন।

মামলার সুত্রে জানা যায়,গত শনিবার দুপুরে উপজেলার হরিরামপুর গ্রামে বালি উত্তোলন করছিল, এলাকার মোজাহারের ছেলে নওশাদ ও মহসীনের ছেলে আব্দুল বারিসহ তার লোকজন। এ খবরে দুই কর্মচারিসহ সেখানে যান সহকারি কমিশনার (ভূমি) পিএম ইমরুল কায়েস। বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই বালি উত্তোলনের বিষয়ে জানতে চাওয়ায় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তার উপর হামলা চালিয়ে মারধর করে সরকার দলীয় ওইসব লোকজন। তাকে হাসপাতালে ভর্তির পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক এসএম আব্দুল কাদের ও পুলিশ সুপার মোঃ শহিদুল্লাহ পিপিএম। রাতে অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে ওই এলাকায় গ্রেফতার অভিযান চালানো হয়।

এদিকে রোববার (২০-০১-১৯) সকালে ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানব বন্ধন করে উপজেলা প্রশাসনের সকল দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারি।

বক্তব্যকালে উপজেলা মৎস্য অফিসার আমিরুল ইসলাম বলেন,সরকারি কাজে বাঁধা দিয়ে এসিল্যান্ডসহ দুই কর্মচারিকে মারধর করা হয়েছে। ন্যাংকারজনক ঘটনায় দুর্বৃত্তদের শাস্তির দাবিতে সুশীল সমাজ ,শিক্ষক ও মুক্তিযোদ্ধারাও কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন। অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহসীন আলী জানান,গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সরেজমিন এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে,গ্রেফতার এড়াতে প্রায় বাড়ির লোকজন আতœগোপনে রয়েছে।

Spread the love
  • 175
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    175
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published.