নবাবগঞ্জে গরুর রশি ছেঁড়া প্রতিযোগিতা

রাজশাহী

স্বদেশবাণী ডেস্ক: ঢাকার নবাবগঞ্জে পৌষ সংক্রান্তে উপলক্ষে গরুর রশি ছেঁড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার যন্ত্রাইল ইউনিয়নের চন্দ্রখোলা কালিবাড়ির এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। প্রতিযোগিতা দেখতে প্রায় ২০/২৫ হাজার দর্শনার্থী সেখানে সমবেত হয়। নানা বয়সী মানুষ দলে দলে রশি ছেড়া প্রতিযোগিতা দেখতে আসে। মুহুর্তের মধ্যে মাঠের চারপাশ ভরে ওঠে। অনুষ্ঠানস্থলকে ঘিরে বাঙালির সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য গ্রাম্যমেলা বসে। সেখানেও উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়।

বাঙালির সংস্কৃতিতে বারো মাসে তের পার্বণের একটি পার্বণ হলো পৌষ সংক্রান্তি। পৌষ সংক্রান্তি বা মকর সংক্রান্তি বাঙালির সংস্কৃতিতে একটি বিশেষ উৎসবের দিন। বাংলা পৌষ মাসের শেষের দিন এই উৎসব পালন করা হয়। এই দিন বাঙালিরা বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজন করে থাকে। তার মধ্যে পিঠা খাওয়া, ঘুড়ি উড়ানো, গ্রাম্য মেলা, গরুর রশি ছেঁড়া প্রতিযোগিতা অন্যতম।

স্থানীয় বাসিন্দা আরব আলী জানান, প্রায় ৪০০ বছর আগে থেকে এ প্রথা পালন করে আসছে এলাকার মানুষ। প্রতি বছর পৌষ মাসের শেষ দিনে এ উৎসব পালন করা হয়। দিনটি উপলক্ষে উৎসবের আমেজ বিরাজ করে এলাকায়।

স্কুল শিক্ষক আলীনূর ইসলাম মিশু বলেন, মেলা উপলক্ষে কয়েকদিন আগে থেকে আশপাশের বাড়িগুলোতে বাড়তে থাকে অতিথির সংখ্যা। তবে এবার করোনার কারনে অতিথির অনেক কম এসেছে। আপ্যায়নের জন্য রকমারি পিঠাপুলির আয়োজন করা হয়। গ্রাম বাংলার মানুষের চিরচেনা এ গরুর রশি ছেঁড়া প্রতিযোগিতার ইতিহাস পুরনো দিনের কথা মনে করিয়ে দেয়।

স্থানীয়রা মনে করেন, এ মেলা হল মানুষের মিলন মেলা। এ অঞ্চলের মানুষের প্রাণের উৎসব। অনেক দুর দুরান্ত থেকে মানুষ এসে এই প্রতিযোগিতা সমবেত হয় ও উল্লাস করে। যদিও এবার করোনার কারনে উৎসবে ভাটা পড়েছে। নগরায়নের ফলে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য খেলাগুলো হারিয়ে যেতে বসেছে। এই ঐতিহ্যকে টিকিয়ে রাখার জন্য পৌষ মাসের শেষের দিনে প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *