বাঘায় ‘টক অব দ্যা র‌্যালি’

রাজশাহী

আব্দুল হামিদ মিঞা,বাঘাঃ র‌্যালির ছবি সংযুক্ত
আর্ন্তজাতিক মার্তৃভাষা দিবসের দিনটি পার হয়ে গেলেও আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে পরিনত হয়েছে¡ হাজার হাজার জনতার শোক র‌্যালি। সাবেক পৌর মেয়র ও জেলা আ’লীগের একজন সদস্য’র নের্তৃতে গত ৫ দিন আগের শোক র‌্যালি নিয়ে। বাঘায় যা টক ‘অব দ্যা র‌্যালিতে পরিনত হয়েছে।

দেখা গেছে, ২১ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা ১ মিনিটে উপজেলা চত্বর শহীদ মিনারে ভাষার জন্য প্রাণ দেওয়া শ্রেষ্ঠ সূর্যসন্তানদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন, প্রশাসনিক কর্মকর্তা,রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের ব্যক্তিবর্গ।
সকাল ৮ টার দিকে হাজার হাজার জনতা নিয়ে শাহদৌলা সরকারি কলেজ শহীদ মিনারে গিয়ে ভাষার জন্য আত্মত্যাগকারীদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন, বাঘা পৌরসভার সাবেক মেয়র ও জেলা আ’লীগের সদস্য আক্কাছ আলী। সকলের মতো তারাও কৃতজ্ঞতায়, স্মরণ করেন ভাষার জন্য প্রাণ দেওয়া শ্রেষ্ঠ সূর্যসন্তানদের। তবে সাধারন মানুষের আলোচনায় আসে হাজারো জনতা নিয়ে শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর বিষয়টি নিয়ে। এখনো আলোচনা চলছে,হাট-বাজার, পাড়া মহল্লার মোড়ের চায়ের দোকানে ।

এবার নির্বাচন থেকে শুরু করে রাজনৈতিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তুমুল তর্ক রয়েছে বিভিন্ন মহলে। সেই আলোচনায় উঠে আসে আক্কাছ একজন অগ্রগণ্য ব্যক্তিত্ব। সমাজ ও রাজনীতির বৃহত্তর সম্পর্কে তার রয়েছে সজাগ দৃষ্টি। জনগণের পক্ষে কথা বলার মত একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। যদিও কোনো কোনো ক্ষেত্রে তাকে আপস করে চলতে হয়। তবুও তোয়াক্কা না করে নিজ গতিতে এগিয়ে চলেছেন তার সমর্থিত লোকজন নিয়ে । একুশে ফেব্রুয়ারি আক্কাছের সেই র‌্যালি হয়ে উঠেছে টক অব দ্যা বাঘা।

মেয়র পদে, বিগত নির্বাচনে পরাজিত হলেও আগামী পৌর নির্বাচনের সূত্র ধরে আরো বিকশিত হবে বলে ভাবছেন সাধারণ মানুষ। তার লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারে হাজার হাজার জনতার শোক র‌্যালি। রাজনৈতিক জীবনে তার পদচারনা তিন যুগের বেশি সময় ধরে। ছাত্র রাজনীতির পরিমন্ডলে তার বেড়ে ওঠা। তার বিচ্ছুরণ অনুভূতি হতে থাকে ছাত্র রাজনীতি থেকে। নির্বাচিত হন উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান।

আর্ন্তজাতিক মার্তৃভাষা দিবসের আলোচনা প্রাক্কালে আক্কাছ আলী তার বক্তব্য বলেছেন, বৃহত্তর ক্ষেত্র হচ্ছে সমাজ ও রাজনীতি। বর্তমান সরকারের সময়ে উন্নয়নের মান বেড়েছে, গুণগত উন্নত হয়েছে। মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়ছে। জন্মভূমি হিসেবে বাঘার প্রতি আমাদের দায়বদ্ধতা আছে। কিন্তু প্রতিহিংসার রাজনীতি বিভেদ বাড়াচ্ছে। বিভিন্ন সময়ে দলীয় প্রোগাম হয়। কিন্তু দায়িত্বশীলরা তাকে কিংবা তার সমর্থিত দলীয় লোকদের জানান না। যার কারণে সমর্থিত লোকজনদের নিয়ে আর্ন্তজাতিক মার্তৃভাষা দিবেসের কর্মসূচি পালন করা।

আলোচনায় বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায়, নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে,দুর্নীতিবাজ অসৎ এবং মতলববাজ লোকদের সুদিন চলছে বলে। সেক্ষেত্রে সরকারের সার্বিক উন্নয়নকে গতিশীল করার জন্য, সাধারণ নাগরিকের জীবন-মান উন্নয়নে,পরিবর্তন প্রয়োজন বলে টক অব দ্যা র‌্যালির আলোচনায় আনেন অনেকে।

অপরদিকে গুরুত্ব সহকারে আলোচনায় উঠে আসে,স্থানীয় সংসদ সদস্য,পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আলহাজ¦ শাহরিয়ার আলম এমপির উন্নয়নের বিষয়টিসহ বাঘা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান,জেলা আ’লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক এ্যাডভোকেট লায়ের উদ্দীন লাভলুর রাজনৈতিক জীবনের কর্মকান্ড নিয়ে। এছাড়াও বর্তমান ও সাবেক নেতাদের নেতৃত্ব নিয়েও আলোচনায় ছিল ।

স্ব.বা/বা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *