আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মোহনপুর ইউনিয়ন বাসীর দোয়া চেয়ে মাঠে ঘাটে জনির গণসংযোগ 

রাজশাহী
সারোয়ার হোসেন, রাজশাহীঃ আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন চেয়ে সবরকম প্রস্তুতি গ্রহণ করে গোদাগাড়ী উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়ন বাসীর বাড়ি বাড়ি গিয়ে দোয়া ও ভোট চেয়ে ভোটের মাঠে নেমেছেন বিশিষ্ট সমাজসেবক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন জনি।
জয়নাল আবেদীন জনির প্রধান লক্ষ মোহনপুর ইউনিয়নের উন্নয়ন বঞ্চিত অবহেলিত নিপিড়ীত জনসাধারনের পাশে দাঁড়ানো। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন মূলক কাজকর্ম তুলে ধরে ইউনিয়ন বাসীর কাছে ভোট চাইছেন তরুণ সমাজসেবক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন জনি।
জনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে মোহনপুর ইউনিয়ন বাসীর জীবন মনোন্নয়নে আমি কোন জনপ্রতিনিধি না হয়েও ইউনিয়ন বাসীর কল্যাণের জন্য দিনরাত নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছি। শুধু তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটাতে চাই আমি।
এছাড়াও এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর পক্ষে ইউনিয়নের বিভিন্ন পাড়া মহল্লার রাস্তা ঘাট সংস্কার, স্কুল মসজিদের আংশিক কাজ সম্পূর্ণ করাসহ অসহায় দরিদ্র মানুষের মাঝে করোনার দুঃসময়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন জনি। যার ফলে, দিন যতই যাচ্ছে ততই যেনো দলমত নির্বিশেষে ইউনিয়ন বাসীর কাছে ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছেন জয়নাল আবেদীন জনি।
মোহনপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখা গেছে, জয়নাল আবেদীন জনি আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর মাধ্যমে এলাকার যেসব পাড়া মহল্লার ভিতরে কাঁচা রাস্তা ছিলো সেইসব রাস্তায় ইট বালু দিয়ে সলিং করে জনসাধারণের চলাচলের উপযোগী করে দিয়েছেন তিনি। এছাড়াও তার প্রচেষ্টায় এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী মসজিদ মন্দির জলাশয় নিষ্কাশনের জন্য ডেন নির্মাণসহ খেলার মাঠ সংস্করণ করে দিয়েছেন।
ইউনিয়নের বেশকিছু বাসিন্দা বলেন, একের পর এক চেয়ারম্যান মেম্বার আসলেও ইউনিয়ন বাসীর উন্নয়নের জন্য তেমন কোন কাজ না হলেও চেয়ারম্যান মেম্বারদের ঠিকই গাড়ী বাড়ীর উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু এবার ইউনিয়ন বাসীর ঘুম ভেঙেছে। তাই নতুন প্রার্থী হিসেবে সবাই জয়নাল আবেদীন জনির পক্ষে সোচ্চার হয়ে উঠেছে ইউনিয়ন বাসী বলে জানান তাঁরা।
গোদাগাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তরুণ সমাজসেবক জয়নাল আবেদীন জনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় রয়েছে, তার পরেও ওয়ার্ড বাসীর উন্নয়ন হয়নি বা হচ্ছে-না। অথচ ইউনিয়ন বাসীর জন্য পর্যাপ্ত বাজেট ঠিকই আসে। কিন্তু চেয়ারম্যান কোন কাজ না করাই ব্যাপক উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত রয়েছে ইউনিয়ন বাসী। তাই এবার ইউনিয়ন বাসীর দাবীতে আমি চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মাঠে নেমেছি। আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে আমার ইউনিয়ন বাসীর উন্নয়নে সর্বচ্চ দক্ষতা ও ভূমিকা রেখে কাজ করে যাব বলে জানান তিনি।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *