জাতীয় দিবস অবহেলার অভিযোগ মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে

রাজশাহী
আল-আফতাব খান সুইট, বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধিঃ নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসকে অবজ্ঞা করে প্রশিক্ষন চালু রাখার অভিযোগ উঠেছে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আখতারের বিরুদ্ধে। এছাড়াও ওই প্রশিক্ষণে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও শিশু দিবসের কোন আলোচনাও না করার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।
বুধবার বিশেষ এদিনটিতে সরকারি ছুটি থাকা সত্ত্বেও আয়বর্ধক (আইজিএ) প্রকল্পের এ প্রশিক্ষণ চালু রাখায় প্রশিক্ষিণার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
জানা গেছে, মহিলা বিষয়ক কার্যালয়ের বাস্তবায়নে আয়বর্ধক (আইজিএ) প্রশিক্ষণ প্রকল্পের আওতায় টেইলারিং ও ব্লক-বাটিক ট্রেডে প্রশিক্ষন কর্মসূচি চলমান রয়েছে। ৬০ কর্ম দিবসের এই প্রশিক্ষন কর্মসূচিতে দুই ট্রেডে ৫০জন নারী প্রশিক্ষণার্থী অংশ নিচ্ছেন। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের দ্বিতীয় তলায় চলছে এই প্রশিক্ষণ।
বুধবার ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে সরকারি বিভিন্ন দপ্তর দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে নিয়েছেন নানা কর্মসূচি। দিবসটি উপলক্ষে সরকারি ছুটি ঘোষনা করা হয়েছে।
কিন্তু উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আখতার দিবসটি অবজ্ঞা করে এ দিনেও প্রশিক্ষণ চালু রাখেন। পাশ্ববর্তী উপজেলাতে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনটি উদযাপনকে ঘিরে প্রশিক্ষন বন্ধ রাখলেও বাগাতিপাড়া উপজেলায় প্রশিক্ষণ চালু রাখায় প্রশিক্ষিণার্থী, তাদের অভিভাবক ও স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। স্থানীয়দের মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের দ্বিতীয় তলায় গিয়ে প্রশিক্ষন চালু রাখার সত্যতা মেলে। প্রশিক্ষণ স্থলে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আখতারের দেখা পাওয়া যায়। তবে প্রশিক্ষিণার্থীদের অভিযোগ, সেখানে বঙ্গবন্ধুর জন্ম বার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে কোন আলোচনা করা হয়নি। এ দিবসটিতে প্রশিক্ষণ চালু রাখায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
এই বিষয়ে কথা বলতে চাইলে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আখতার মোবাইল ফোনে বলেন, তিনি প্রশিক্ষন চালু রেখেছেন। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে আগামীকাল বৃহস্পতিবার তার অফিসে যেতে বলেন। নাটোর জেলা মহিলা বিষয়ক দপ্তরের উপ-পরিচালক ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীর এই দিবসে প্রশিক্ষণ চালু রাখার কথা নয়। তবুও কেনো প্রশিক্ষন চালু রাখা হয়েছে বিষয়টি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নিবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রিয়াংকা দেবী পাল বলেন, ছুটি থাকা সত্ত্বেও প্রশিক্ষণ চালু রেখে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হয়তো দিনটিকে কাজে লাগাতে চেয়েছেন।
এবিষয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্যমল কুমার রায় বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী শ্রদ্ধাভরে স্মরন করছে দেশবাসী। এই দিনটিতে কর্মসূচির পরিবর্তে প্রশিক্ষন চালু রেখে ওই কর্মকর্তা ধৃষ্টতা দেখিয়েছেন। যা জাতীয় দিবসটিকে শুধু অবহেলায় নয় রিতীমত অবজ্ঞার সামিল।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *