ওসিকে জিম্মি করে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে এক হাজার টাকার চাঁদাবাজি মামলা !

রাজশাহী লীড
তানোর(রাজশাহী)প্রতিনিধি: রাজশাহীর তানোর থানায় প্রবেশ করে প্রকাশ্যে বিষপান ও গলায় দড়ি দিয়ে আত্নহত্যার হুমকির মাধ্যমে ওসিকে জিম্মি করে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে এক হাজার টাকা চাঁদাবাজির সাজানো মামলা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এদিকে কোনো তদন্ত ছাড়াই তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির সাজানো মামলা রেকর্ড করায় ওসির প্রশ্নবিদ্ধ ভুমিকা নিয়ে উপজেলা জুড়ে ব্যাপক তোলপাড় সৃস্টি হয়েছে। অন্যদিকে তিন সাংবাদিক পরিবার সরেজমিন তদন্তপুর্বক মামলার বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের  জন্য স্থানীয় সাংসদ (এমপি), রাজশাহী জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও রাজশাহী পুলিশ সুপারের (এসপি) জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
অপরদিকে উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের দায়িত্বশীল দুই কর্মকর্তা বিক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, তিনজন পেশাদার গণমাধ্যম কর্মীর বিরুদ্ধে কোনো তদন্ত ছাড়াই মাত্র এক হাজার টাকার চাঁদাবাজি মামলা রেকর্ড করায় ওসির দায়িত্বশীলতা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে। জানা গেছে, তানোরের কলমা ইউপির রামনাথপুর গ্রামের সাইদুর রহমানের পুত্র মাহাবুর রহমান (২৯) বৈধ কোনো কাগজপত্র ছাড়াই নিজেকে দন্ত চিসিৎসক পরিচয় দিয়ে দরগাডাঙ্গা বাজারে চেম্বার খুলে চিকিৎসার নামে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে যার বড় অংশ যাচ্ছে তার খালু সাংবাদিক সাঈদ সাজুর পকেটে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি বলেন, দন্ত চিকিৎসার আড়ালে বিশেষ কৌশলে পুরিয়ায় গাঁজা বিক্রি তার মুল ব্যবসা, খালুর দোহাই দিয়ে তিনি এসব করেন। অন্যদিকে স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে গত ১৩ এপ্রিল মঙ্গলবার  সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে ওই তিন গণমাধ্যম কর্মী দরগাডাঙ্গা বাজারের বঙ্গবন্ধু চত্ত্বরে কথিত দন্ত চিকিৎসক মাহাবুর রহমানের কাছে তার চিকিৎসা সম্পর্কে খোঁজ খবর নিতে গেলে তিনি বলেন, তার চিকিৎসায় রোগী ভাল হয় সেটাই বড় কথা ডিগ্রী থাকতেই হবে এমন কোনো কথা আছে না কি-? আর আপনারা এসব জানার কে সাংবাদিক সাঈদ সাজু তার খালু হয়, কিছু জানার থাকলে খালুর কাছে জানবেন, আর এসব নিয়ে বাড়াবাড়ী বা কোনো খবর করলে চাঁদাবাজি মামলা দিয়ে লাল দালানে পাঠাবো, নয় হাত-পা ভেঙ্গে দিবো- এসব কথা বলার পর সাংবাদিকরা সেখান থেকে ফিরে এসে তানোর পৌর মেয়র ও তানোর রিপোর্টাস ক্লাব (টিআরসি)  সভাপতিকে বিষয়টি অবহিত করেন।
এদিকে এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে একই দিন সাংবাদিক সাঈদ কৌশলে কথিত দন্ত চিকিৎসক মাহাবুর রহমানকে বাদি করে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে থানায় এক হাজার টাকার চাঁদাবাজি অভিযোগ করায়। অভিযোগে স্বাক্ষী করা হয় শাকিল আহম্মেদ, আমিনুল ইসলাম ও সাঈদ সাজুকে। তবে শাকিল ও আমিনুল বলেন, তারা এবিষয়ে কিছুই জানেন না।অন্যদিকে সাজানো ও ভিত্তিহীন অভিযোগের কারণে থানা তদন্ত ব্যতিত মামলা নিতে অপপারগতা প্রকাশ করেন।
এ সময় সাংবাদিক সাঈদ সাজু বিষের বোতল ও রশি নিয়ে ওসি সাহেবকে বলেন, সত্য-মিথ্যা বুঝি না এই মামলা না নিলে তার স্ত্রীর মতো তিনি থানার ভিতরে বিষপাণ অথবা গলায় দড়ি দিয়ে আত্নহত্যা করবেন, স্ত্রীকে বিষপানে মেরেছে এবার সে শহীদ হবে বলে ওসি সাহেবকে জিম্মি করে মামলা রেকর্ড করাতে বাধ্য করে। এবিষয়ে তানোর থানার অফিসার ইন্চার্জ(ওসি) রাকিবুল হাসান বলেন, সাংবাদিক সাঈদের পরিবারে বিষপানে আত্নহত্যার প্রবণতা রয়েছে, এমনকি থানার ভিতরে বার বার বিষপানে আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছে। এবিষয়ে জানতে চাইলে মামলার বাদি মাহাবুর রহমান বলেন, এবিষয়ে তার কোনো বক্তব্য নাই, যা বলার তার খালু বলবে।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *