স্ট্যাটাস দিয়ে চাকরি হারালেন ইমাম

রাজশাহী লীড

স্বদেশবাণী ডেস্ক: বগুড়ার ধুনটে হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে চাকরি হারালেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জামে মসজিদের ইমাম মুর্শিদুল ইসলাম। উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ও মসজিদ কমিটির সভাপতি হাসানুল হাছিব স্বাক্ষরিত পত্রে ইমামের চাকরি থেকে অব্যাহতির বিষয়টি নিশ্চিত হয়।

মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে ওই ইমামকে অব্যাহতির বিষয়টি জানানো হয়। ইমাম মুর্শিদুল ইসলাম উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামের গোলাম রহমানের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১২ বছর ধরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জামে মসজিদে ইমামতি করে আসছিলেন মুর্শিদুল ইসলাম। চাকরির সুবাদে তিনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সরকারি কোয়ার্টারে পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন।

গত ৩ এপ্রিল সোনারগাঁওয়ে রয়্যাল রিসোর্টে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে অবরুদ্ধ করে রাখার ঘটনায় ওই দিনই ইমাম মুর্শিদুল ইসলাম তার নিজের ফেসবুক আইডিতে মামুনুল হকের পক্ষে পোস্ট দেন। পরে বিষয়টি মসজিদ পরিচালনা কমিটির লোকজন ও সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের নজরে আসে।

পরে বিষয়টি নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়ায় গত রবিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মসজিদ কমিটির সদস্যগণ, স্থানীয় মুসল্লী ও সরকারি দলের স্থানীয় নেতাকর্মীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বৈঠকে বসেন। ওই বৈঠকে সর্বসম্মতিক্রমে ইমাম মুর্শিদুল ইসলামকে চাকরিচ্যুত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এ বিষয়ে মুর্শিদুল ইসলাম বলেন, ‘হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে হেনস্তা করার দৃশ্য দেখে আবেগে পড়ে মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম। সেই স্ট্যাটাসে সরকারবিরোধী কোনো কথা ছিল না। পরবর্তী সময়ে ভুল বুঝতে পেরে ফেসবুক থেকে সেই স্ট্যাটাস মুছে ফেলেছি এবং মসজিদ কমিটির সদস্যদের কাছে ক্ষমাও চেয়েছি। কিন্তু তারা আমাকে ক্ষমা না করে চাকরিচ্যুত করেছেন।’

ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হাসানুল হাছিব বলেন, মসজিদ কমিটির সদস্য, উপজেলা প্রশাসন ও সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মুর্শিদুল ইসলামকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তাকে সরকারি বাসা ছেড়ে দিতে বলা হয়েছে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *