রাজশাহীতে ব্র্যাক সদস্যদের মাঝে বিকাশের মাধ্যমে সঞ্চয় ফেরত

রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টার(নাজমুল): কঠোর লকডাউন চলাকালীন সময়ে সরকারি বিধি নিষেধ অনুযায়ী ব্র্যাক এর শাখা অফিস সমূহ বন্ধ থাকলেও সদস্যদের কথা চিন্তা করে বিকাশ ওয়ালেটের মাধ্যমে সঞ্চয়ের টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে।

বৈশ্বিক মহামারি করোনার এই ক্রান্তিকালে গরীব ও অসহায় সদস্যদের চাহিদা ও দুরাবস্থার কথা বিবেচনা করে ব্র্যাক রাজশাহী বিভাগে ৩৫৮ জন সদস্যকে ১৪ লাখ ৮৩ হাজার টাকা বিকাশে সঞ্চয় ফেরত দিয়েছে। সঞ্চয়ের টাকা হাতে পেয়ে সদস্যরা অনেক খুশি। এই কঠিন মুহুর্তে সঞ্চয় ফেরতের টাকাগুলি তাদের অনেক উপকারে আসবে বলে একাধিক সদস্যরা জানান।

কঠোর লকডাউনের সময় অফিস বন্ধ থাকা সত্ত্বেও এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহণের জন্য ব্র্যাকের সদস্যরা ব্র্যাকের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন।

এই কার্যক্রম করোনার দ্বিতীয় ধাপের মহামারীতে অব্যাহত থাকবে বলে জানা যায়। লকডাউন যদি দীর্ঘমেয়াদী হয় তাহলে পরবর্তীতে সদস্যদের চাহিদা যাচাইয়ের মাধ্যমে আবারও বিকাশের মাধ্যমে সঞ্চয় ফেরত দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

এই প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (দাবি)-১ মো: সাইফুল ইসলাম জানান, বর্তমান করোনা মহামারী সংকটকালীন সময়ে এবং ঈদ-উল আযহাকে সামনে রেখে সদস্যদের নিত্যপণ্য চাহিদা মেটাতে ব্র্যাক সদস্যদের সঞ্চয় ফেরত প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং উক্ত কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (দাবি)-২ ফাতিমা তুজ জোহরা বলেন, সরকার গৃহীত লকডাউনের কারনে কর্মীগণ ফিল্ডে মুভমেন্ট করছেন না কিন্তু প্রতিটি কর্মী প্রতিদিন সদস্যদের সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ রেখেছেন এবং তাদের চাহিদা মাফিক বিকাশের মাধ্যমে সঞ্চয় ফেরতের ব্যবস্থা করছেন।

করোনার এই কঠিন সময়ে অন্যান্য এনজিও এর মতো ব্র্যাক ঋণ বিতরণ কার্যক্রম বন্ধ রাখলেও বিশ্বের ১নং এনজিও হিসেবে দায়িত্ববোধ থেকেই সদস্যদের আর্থিক ক্ষতির কথা চিন্তা করে বিকাশের মাধ্যমে সঞ্চয় ফেরত দিয়েছে। ব্র্যাক এর মতো অন্যান্য এনজিও গুলো এই কঠিন সময়ে পাশে থাকবেন বলে সদস্যরা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

 

স্ব:বা/না

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *