উপচারের সম্পাদকসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে সাংবাদিক জুলুর লিগ্যাল নোটিশ

রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী থেকে প্রকাশিত দৈনিক উপচার পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক ড. মোহাম্মদ আবু ইউসুফ সেলিম ও ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নুরে ইসলাম মিলনসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে লিগ্যাল নোটিশ আইনজীবীর মাধ্যমে প্রেরণ করেছেন রাজশাহী থেকে প্রকাশিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল খবর ২৪ ঘণ্টার চেয়ারম্যান সাংবাদিক নজরুল ইসলাম জুলু। গতকাল রোববার জজ কোর্টের আইনজীবী এস. এম জ্যোতি উল ইসলাম (সাফী) এর মাধ্যমে এ লিগ্যাল নোটিশ পাঠান তিনি। বাকি ৩ জন হলেন, উপচারের স্টাফ রিপোর্টার আসগর আলী সাগর, স্টাফ রিপোর্টার ইকবাল মাহমুদ অন্তর ও স্টাফ রিপোর্টার হাবিব তারা।


লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়েছে, উপচার পত্রিকার অনলাইন ভার্সন ও ১৯ আগস্ট উপচার পত্রিকার প্রথম পাতায় সাংবাদিক নজরুল ইসলাম জুলুর বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলক ও ভিত্তিহীন এবং মানহানিমূলক সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। খবরে বলা হয়েছে,

সাংবাদিক নজরুল ইসলাম জুলুর এলাকার মেরাজুল ইসলামের ছেলে আজিজ আলম নামের একব্যক্তি দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযোগ দিয়েছেন। ওই এলাকায় আজিজ আলম নামক কোনো ব্যক্তি আছে বলে তার জানা নেই। থাকলেও সাংবাদিক জুলু তাকে চেনে না। মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে কোনো রকম অভিযোগের সত্যতা যাচাই-বাছাই ছাড়াই তাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার উদ্দেশ্যে করা হয়েছে। খবরটি শুধু প্রতিহিংসার জেরেই করা হয়েছে। খবরের প্রথমেই বলা হয়েছে জুলু নাকি নামধারী সাংবাদিক।

কখনোই কোনো সংবাদ মাধ্যমে যুক্ত ছিলেন না। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। তিনি আঞ্চলিক ও জাতীয় বিভিন্ন পত্রিকায় সুনামের সাথে কাজ করেছেন। তিনি যুগান্তর, আজকের কাগজ, প্রথম আলো, ইত্তেফাক, কালের কণ্ঠ, দৈনিক বার্তা, আইএনবি বার্তা সংবাদ সংস্থা, দৈনিক খবরপত্র, দি নিউ নেশনসহ বিভিন্ন পত্রিকায় কাজ করেছেন। তারপরও বলা হয়েছে তিনি সাংবাদিক নন। এটা খুবই দুঃখজনক। আরো বলা হয়েছে, তার নামে থানায় ২টি ধর্ষণ, চাঁদাবাজী, ডাকাতি, জবরদখল, লুটপাট সংক্রান্ত মামলা আছে। তার নামে কোনো থানায় ধর্ষণ সংক্রান্ত মামলা নেই। মিথ্যা মামলায় তিনি ইতিমধ্যে খালাস পেয়েছেন।

আরোও বলা হয়েছে, তিনি নাকি বিএনপি, জামায়াতের সাথে জড়িত ও শিবিরের অস্ত্রের জোগানদাতা। তিনি কখনোই কোনো দলের সাথে জড়িত ছিলেন না। খবরে আলো বলা হয়েছে, জুলুর সোনালী, রুপালী, অগ্রণী, যমুনা ব্যাংকে ২০ কোটি জমা আছে। এই ব্যাংকগুলোতে তার কোনো এ্যাকাউন্ট নেই। তার নাকি রামচন্দ্রপুর হাটে ১০ কাঠা জমি, বিলসিমলায় প্লট ও উপশহরে দখলকৃত ২টি প্লট আছে। যা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। উপচার পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নুরে ইসলাম মিলন পলাতক থাকা অবস্থায় র‌্যাবের হাতে আটক হয়।

সেই ঘটনার সংবাদ জুলুর প্রতিষ্ঠানসহ বেশ কিছু গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। আর এই ঘটনার জের ধরেই উপচারে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। তার টিকাপাড়ায় অবস্থিত বাবার দান করা পৈত্রিক নিবাস ছাড়া কোথাও কোনো সম্পত্তি নেই। চাঁদাবাজি ও থানায় তদবিরসহ যে তথ্য দিয়ে সংবাদ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। সংবাদটি প্রকাশ করে মানহানি করা হয়েছে। তাই উপচারকে আগামী ১ মাসের মধ্যে সংবাদ সংশোধন করে প্রকৃত সত্য সংবাদ করতে হবে এবং দুঃখ প্রকাশ না করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়েছে।

 

স্ব:বা/না

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *