রাবির ১৩৮ নিয়োগ স্থগিত, ড. সোবহানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে রুল

রাজশাহী লীড

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. এম আব্দুস সোবহান গত ৫ মে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে যে ১৩৮ জন শিক্ষক কর্মকর্তা কর্মচারীকে অ্যাডহকে (অস্থায়ী ভিত্তিতে) নিয়োগ দিয়েছিলেন তার সব কার্যক্রম স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে উচ্চ আদালত একটি একক বেঞ্চ প্রফেসর ড. সোবহানের বিরুদ্ধে নজিরবিহীন দুর্নীতি অনিয়মের অভিযোগে কেন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে না- তা জানাতে সরকারসহ সংশ্লিষ্টদের ওপর রুল জারি করেছেন।

সোমবার জনস্বার্থে দায়ের করা একটি রিটের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়ার একক বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

জনস্বার্থে এই রিট করেন হাইকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। ব্যারিস্টার বড়ুয়া সোমবার সন্ধ্যায় বিষয়টি যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, আদালত আগামী ১৪ নভেম্বর রুলের জবাব দিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, রাবি ভিসি ও দুর্নীতি দমন কমিশনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আদেশে বলা হয়েছে, রাবির সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. এম আব্দুস সোবহানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ না করা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না- এই বিষয়ে রুলের জবাব দাখিল করতে হবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে। একইসঙ্গে রাবির সাবেক ভিসির দেওয়া গণনিয়োগকে অবৈধ ঘোষণা এবং এসব কার্যক্রম স্থগিত করা  হয়েছে। এই আদেশের ফলে অ্যাডহকে দেওয়া নিয়োগের কার্যকারিতা আর অবশিষ্ট নেই বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

ব্যারিস্টার বড়ুয়া আরও বলেন, রাবির সাবেক ভিসি একজন দুর্নীতি পরায়ণ ব্যক্তি হিসেবে চিহ্নিত হয়েছেন। দ্বিতীয় মেয়াদের শেষদিনের একদিন আগে গত ৫ রাতে ড. সোবহান তার একক স্বাক্ষরে ও ক্ষমতাবলে রাবিতে ১৩৮ জন শিক্ষক কর্মকর্তা কর্মচারীকে নিয়োগ দিয়ে নজিরবিহীন ঘটনা ঘটান। অথচ ২০২০ সালের ১০ ডিসেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয় তাকে চিঠি দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো প্রকার নিয়োগ কার্যক্রম গ্রহণ ও প্রদান না করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু ড. সোবহান মন্ত্রণালয়ের সেই আদেশ লঙ্ঘন করে ৫ মে রাতভর ভিসির বাসভবনে চাকরি বিতরণের মাধ্যমে গণনিয়োগ দেন বিভিন্ন জনকে। এদের মধ্যে জামায়াত শিবিরের লোকেরাও চাকরি বাগিয়ে নেয়।

তিনি বলেন, এই ধরনের বিতর্কিত নিয়োগের ফলে রাবি ক্যাম্পাসে অরাজক ও বিশৃঙ্খল পরিবেশের সৃষ্টি হয়। শেষে ৬ মে দুপুরে শিক্ষক শিক্ষার্থীদের প্রবল বিক্ষোভের মুখে সাবেক ভিসি পুলিশ পাহারায় ক্যাম্পাস ত্যাগ করতে বাধ্য হন। যদিও ৬ মে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সাবেক ভিসির দেওয়া গণনিয়োগকে অবৈধ বলে একটি পরিপত্র জারি করেন।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার তাপু সোমবার সন্ধ্যায় যুগান্তরকে বলেন, আদালতের আদেশ হাতে পাওয়ার পর সে অনুযায়ী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *