রাজশাহীতে বিএনপি’র বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালিত

রাজশাহী লীড
স্টাফ রিপোর্টারঃ দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় শহীদ জিয়ার সৈনিকেরা বীরের মত মরতে পারে। বিশ্বের কোন স্বৈরশাসক বেশীদিন স্থায়ী হতে পারেনি। তাদের করুন অবস্থা হয়েছে। দেশের বর্তমান স্বৈরশাসক হিসেব পরিচিত বর্তমান সরকারের প্রধানেরও একই অবস্থায় বিদায় নিতে হবে। আজ ৭ নভেম্বর ২০২১, রোববার সকাল সাড়ে ৭টায় রাজশাহীতে বিএনপি বিপ্লব ও সংহতি দিবস উদযাপন উপলক্ষে নানা কর্মসূচীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালোদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্ঠা, সাবেক রাসিক মেয়র ও সংসদ সদস্য জননেতা মিজানুর রহমান মিনু এই কথাগুলো বলেন।
তিনি বলেন, বর্তমানে দেশের অবস্থা অত্যন্ত লাজুক হয়ে পড়েছে। নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক উর্ধ্বগতির কারনে মানুষ দিশেহারা হয়ে পড়েছে। শাক-সবাজী থেকে শুরু করে জালানী তেল, ভোজ্য তেল, গ্যাস, চাল, ডাল, পেঁয়াজ, ডিম ও মাংশসহ সকল পন্যের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। ৭ নভেম্বর জনগণকে বাকশালের কবল থেকে রক্ষা করতে সিপাহী জনতা বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা, বাংলার রাখাল রাজা, উন্নয়নের রুপকার ও গণতন্ত্রের পুরোধা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান কারাগার থেকে মুক্ত করেন। এরপর তিনি ভঙ্গুর এই রাষ্ট্রকে পৃথিবীর মানচিত্রে পরিচিতি করে তোলেন বলে কক্তব্যে উল্লেখ করেন তিনি।
মিনু আরো বলেন, বাংলাদেশে একনায়কতন্ত্র কায়েম হয়ে গেছে। কারো স্বাধীনতা নাই। বাক স্বাধীনতা নাই। গণতন্ত্র ধ্বংশ হয়ে গেছে। মানুষ হারিয়েছে তার ভোটাধিকার। বিনাভোটে নির্বাচিত হয়ে অবৈধভাবে এই সরকার দেশ পরিাচলনা করছে বলেই দেশের জনগণের প্রতি এই সরকারের কোন দ্বায়বদ্ধতা নাই। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, দেশের গণতন্ত্র পুণরুদ্ধার এবং এই স্বৈরশাসকের কবল থেকে দেশকে রক্ষা করতে আন্দোলনের কোন বিকল্প নাই। সরকার পতনের আন্দোলন চলমান আছে। এটাকে আরো বেগমান করে এই সরকারকে পতনের আন্দোলনের দলীয় নেতৃবৃন্দ এবং দেশবাসীকে শরীক হওয়ার জন্য আহবান জানান মিনু।
এদিকে বক্তব্যের পূর্বে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, পায়রা, বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে দিনের কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথিসহ উপস্থিত সকল নেতৃবৃৃন্দ। শেষে দেশ ও জাতির কল্যাণ, বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের অসুস্থ্য নেতাকর্মীর সুস্থ্যতা এবং মৃত ব্যক্তিদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।
রাজশাহী মহানগরীর মালোপাড়াস্থ্য বিএনপি কার্যালয়ের সামনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ও রাসিক সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন।
মহানগর বিএনপি’র যুুুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউল হক রানার উপস্থাপনায় এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, বোয়ালিয়া থানা বিএনপি’র সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু, শাহ্ মখ্দুম থানা বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাসুদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, জেলা যুবদলের সাবেক আহবায়ক আনোয়ার হোসেন উজ্জল, মহানগর কৃষক দলের সদস্য সচিব গোলাম সাকলায়েন ইকো, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি নজরুল ইসলাম খোকা, ৩নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি ওয়াজির উজির ও ১নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক শামীম রেজা।
এছাড়াও যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, রাজশাহী মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক আব্দুল কাদের বকুল, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শরিফুল ইসলাম জনি ও সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাম রবি, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাকির হোসেন রিমন, সাধারণ সম্পাদক আবেদুর রেজা রিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক আনন্দ কুমার মন্ডল, তাঁতী দলের সভাপতি আরিফুল হক বনি, মহানগর মহিলা দলের সভাপতি রওশন আরা মমতা, সহ-সভাপতি নুরজাহান বেগম ও ফাতেমা, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপিকা সকিনা খাতুন, সাংগঠনিক সম্পাদক মুসলিমা বেলী, সহ-সাংগঠনিক জরিনা, যুগ্ম সম্পাদক ফেরদৌসী ও মনোয়ারা, দপ্তর সম্পাদক রোজি ও ক্রীড়া সম্পদিকা বিথি, মহানগর ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী জ্যাকি, সহ বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আজ বিকেলে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে বলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নিশ্চিত করেন।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *