১৩ মাসে ৫ বার শ্রেষ্ঠ হলেন বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ

রাজশাহী

মোহনপুর প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ তের মাসের মধ্যে ৫ মাসই রাজশাহী জেলায় শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হয়েছেন। সম্প্রতি রাজশাহী জেলা পুলিশের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মাসিক কল্যাণ সভায় ৫ বারের মতো শ্রেষ্ঠ ওসির স্বীকৃতি পেয়েছেন তিনি।

পুলিশ হেড কোয়াটার্স কর্তৃক অভিন্ন মানদন্ডের ভিত্তিতে তিনি শ্রেষ্ঠ ওসি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। ২০২০ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০২১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনি ৫ বার শ্রেষ্ঠ ওসির স্বীকৃতি পেয়েছেন। পাঁচ বারের মধ্যে পরপর চার মাস শ্রেষ্ঠ হয়েছেন। যেটা অন্য কোন থানায় হয়নি বলেও জানা গেছে।

মূলত কয়েকটি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচন করা হয় এরমধ্যে ওয়ারেন্ট তামিল, মুলতবী মামলা খারিজ, মাদক উদ্ধার অভিযান, বহিরাগত লোকজনের বিষয়ে নজরদারী সহ সার্বিক আইন শৃংখলা পরিস্থিতি রক্ষা করা।

ওসি মোস্তাক আহম্মেদ ২১ নভেম্বর ২০২০ সালে বাগমারা থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন। বাগমারা থানায় যোগদানের পর থেকে আইন শৃংখলা পরিস্থিতির উন্নতি হতে শুরু করে। তিনি যোগদানের পর থেকে বাগমারায় বাল্য বিবাহ, নারী পাচার, মাদক, চোরাচালান, মারামারি, হত্যা, মামলা মোকদ্দমা সহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড কমে যায়।

মোস্তাক আহম্মেদের বলিষ্ঠ দ্বায়িত্ব পালন আর দৃঢ় নেতৃত্বে বাগমারা উপজেলা সার্বিক আইন শৃংখলা পরিস্থিতি আগের চেয়ে অনেক ভালো রয়েছে। কোন অপ্রীতিকর ঘটনা যেন ঘটতে না পারে সে ব্যাপারে সদা তৎপর থাকেন ওসি মোস্তাক আহম্মেদ।

মোস্তাক আহম্মেদ এর আগে রাজশাহীর মোহনপুর থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তবে সেখানে কর্মরত অবস্থায় তিনি শ্রেষ্ঠ ওসি হতে না পারলেও মোহনপুর থানা এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটিয়ে মোহনপুরবাসির মন জয় করেছিলেন। যা মোহনপুর থানা হতে তার বিদায় মুহূর্তে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল।

বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, আমি সরকারী নির্দেশনা মেনে সকল দায়িত্ব পালন করে চলেছি। সেই সাথে এলাকার শান্তি শৃংখলার যেন অবনতি না ঘটে সে ব্যাপারে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে থাকি।

তিনি আরো বলেন, বাগমারা রাজশাহী জেলার মধ্যে সব থেকে বড় উপজেলা। বড় উপজেলা হওয়ায় অনেক সময় দু একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে যেতে পারে। তবে উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় গিয়ে লোকজনের সাথে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করে থাকি। তারা যেন অকারনে সামান্য বিষয় নিয়ে নিজেদেরকে মামলা মোকদ্দমায় না জড়ায়।

এদিকে মাদক, বাল্য বিবাহ নিয়ন্ত্রণ, মামলার তথ্য উদঘাটন সহ দ্রুততার সাথে সার্বিক সকল বিষয়ে ভূমিকা রেখে চলেছি। মোস্তাক আহম্মেদ আরো বলেন, আমি চেয়েছি লোকজন যেন হয়রানিমুক্ত সেবা পায়। লোকজন যেন আমার কাছে ছুটে না আসে, আমি নিজেই যেন লোকজনের দ্বারপ্রাপ্ত গিয়ে সঠিক সেবা প্রদান করতে পারি।

রাজশাহীর পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেন, বিপিএম (বার) এর সভাপতিত্বে উক্ত সভায় ডিসেম্বর ২০২১ মাসের সার্বিক অপরাধ সহ সকল দিক বিবেচনায় শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হয়েছেন মোস্তাক আহম্মেদ। শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হওয়ায় তাঁর হাতে সনদপত্র তুলে দেন জেলা পুলিশ সুপার। এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন), ডিএসবি সহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

স্ব:বা/না

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *