বাঘায় নাতির বারান্দা ছেড়ে কৃষি কর্মকর্তার করে দেওয়া ঘরে থাকবেন বিধবা ভিক্ষুক

রাজশাহী

বাঘা প্রতিনিধি: এখন থেকে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার করে দেওয়া নতুন ঘরে বাঁকি জীবনটা কাটাবেন ষাটয়োর্ধ্ব বিধবা ভিক্ষুক রাবিয়া বেওয়া। এর আগে থাকতেন নাতির ঘরের বারান্দায়। রোববার (৬ ফেব্রæয়ারী) দুপুরে নতুন সেই ঘরের চাবি রাবিয়া বেওয়ার হাতে তুলে দেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শফিউল্লাহ সুলতান । এ সময়উ পস্থিত ছিলেন, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা নাফিজ শরিফ ও উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা মিলন কুমার দাস। বিধবা রাবিয়া বেওয়া উপজেলার আমোদপুর গ্রামের প্রয়াত আলীমুদ্দিনের স্ত্রী।

জানা যায়, স্বামীর মৃত্যুর পর নাতির ঘরের বারান্দায় জীবন কাটাতেন বিধবা রাবেয়া বেওয়া। জীবন জীবিকার উৎস্য ছিল ভিক্ষাবৃত্তি আর সরকারের দেওয়া বয়স্কভাতা। স্থানীয় ইউপি সদস্য রেজাউল করিমের মাধ্যমে বিধবা ভিক্ষুক রাবিয়া বেওয়ার মানবেতর জীবন যাপনের বিষয়টি জানতে পারেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শফিউল্লাহ সুলতান। পরে রাবিয়া বেওয়ার খোঁজ খবর নিয়ে, তাঁরই নাতী লালন উদ্দিনের বাড়ির পাশে সামান্য একটু জায়গা নিয়ে একটি ঘর তুলে দেয়ার ব্যবস্থা করেন । একই সাথে তাঁর নানীর খাবারসহ প্রয়োজনীয় খরচেরও ব্যবস্থা করে দেন। জীবনের শেষ প্রান্তে এসে মাথা গুজার ঠাঁই পেয়ে ভিক্ষা বৃত্তি করবেনা বলে জানান বিধবা ভিক্ষুক রাবিয়া বেওয়া ।

বাজু বাঘা ইউপি সদস্য রেজাউল করিম বলেন, কৃষি কর্মকর্তা শফিউল্লাহ সুলতান প্রমান করলেন, মানুষ মানুষের জন্য। তিনি সমাজের একটা দৃষ্টান্ত।
কৃষি কৃষিকর্মকর্তা শফিউল্লাহ সুলতান বলেন, মানবসেবা হলো সব চেয়ে বড় সেবা । আশ্রয়হীনদের ঘর দেওয়া সহ ভিক্ষুকদের কর্মসংস্থান ও পূর্নবাসন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী । আমি তাঁর এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে একজন ভিক্ষুকের দায়িত্ব নিয়েছি মাত্র ।

স্ব.বা/বা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *