নাটোরের উত্তরা গণভবনের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন

রাজশাহী

নাটোর প্রতিনিধিঃ শোভাযাত্রা ও কেক কাটাসহ নানা আয়োজনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেয়া নাটোরের উত্তরা গণভবনের ৫০ বছর পুর্তি উৎসব পালন করা হয়।

এ উপলক্ষে বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে উত্তরা গণভবন গেটে জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ ও পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা স্থানীয় কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, সকল দর্শনার্থী ও দিঘাপতিয়া বালিকা শিশুসদনের এতিম শিশুদের ফুল দিয়ে বরণ করেন। সকালে প্রথম ৫০ দর্শনার্থীকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। দিঘাপতিয়া শিশু সদনের শিক্ষার্থী, মুক্তিযোদ্ধা, গণমাধ্যম কর্মী, জনপ্রতিনিধিসহ দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে গণভবন। পরে গণভবনের ভিতরে অবস্থিত গোল চত্বরে ৫০ বছর পূর্তিতে কেক কেটে দিবসের শুভ উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ।

এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাদিম সারোয়ার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল ইসলাম, দিঘাপতিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম বিদ্যুৎসহ জেলা প্রশাসনের সকল স্তরের কর্মকতার্ ও জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধন পরবর্তীতে সবাইকে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজরিত গণভবন চত্বরের দৃশ্যাবলী ঘুরে দেখানো হয়। পরিদর্শন শেষে উপস্থিত সকলকে মিষ্টিমুখ করানো হয়। এ ছাড়া বিকেলে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

এদিকে নামকরণের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে দিঘাপতিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ও খোলা জানালা যৌথভাবে শোভা যাত্রা ও কেক কেটে পুর্তি উৎসব পালন করে। শোভা যাত্রায় জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ সহ জেলা প্রশাসনের কর্মকতার্রা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া কেক কাটা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত মহিলা এমপি রত্না আহমেদ। অপরদিকে দিনটিকে স্মরনীয় করে রাখতে দর্শনার্থীরাও উৎসবে শরীক হতে সকাল থেকেই গণভবনে ভির করেন। তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে নেচে গেয়ে উৎসব অনুষ্ঠানকে মাতিয়ে তোলে।

উদ্দোগে র‍্যালী ও গণভবনে
পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেন, নাটোরের মানুষদের বেশী ভালবাসতেন বলেই বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার পর পরই বঙ্গবন্ধু এখানে এসেছিলেন এবং রাষ্ট্রিয়ভাবে এই রাজবাড়িকে গণভবন হিসেবে ঘোষনা দিয়েছিলেন। ওই ঘোষনায় নাটোরের মযার্দা বহুগুনে বেড়ে গিয়েছে। নামকরণের ৫০ বছর পুর্তিতে এখানে ক্যবিনেট মিটিং করার দাবীও উঠেছে বিশিষ্টজনদের কাছে থেকে। সরকার প্রধান বিশেষ করে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ৫০ বছর পুর্তিতে যে কোনদিন এখানে এরে নাটোরের মানুষ যেমন উজ্জীবিত হবে,তেমনি নাটোরের মযার্দা আরো বহুগুনে বেড়ে যাবে।

জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ জানান, ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে নাটোরবাসী উৎসাহ ভরে দিবসটি পালন করছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সালের এই দিনে এই উত্তরা গণভবনের নামকরণ করেছিলেন। আগামীতে নাটোরবাসীর যে আবেগ অনুভুতির প্রতি সন্মান প্রদর্শন করে তাতে সদাশয় সরকার ও জাতির পিতার স্মৃতিবিজরিত এই উত্তরা গণভবনে মন্ত্রীপরিষদ ডিভিশান এই উত্তরা গণভবনে কেবিনেট ডিভিশানের মিটিংএর আয়োজন করবেন। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সে ভাবেই যোগাযোগ করা হবে।

উল্লেখ্য ১৯৭২ সালের ৯ ফেব্রুয়ারী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আনুষ্ঠানিভাবে দিঘাপতিয়া রাজবাড়িকে উত্তরা গণভবন হিসেবে নামকরণ করেন। সেই নামকরনের ৫০ বছর পূর্ণ হথল আজ ৯ ফেব্রুয়ারী বুধবার। বঙ্গবন্ধু ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্মৃতি বিজরীত দৃষ্টিনন্দন উত্তরা গণভবনে অতিতের ধারাবাহিকতায় আবারও মন্ত্রী পরিষদের বৈঠকের মাধ্যমে উত্তরা গণভবনের নামকরনের সার্থকতা ও গৌরব ফিরিয়ে আনার দাবী রয়েছে নাটোরবাসীর।

স্ব.বা/

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *