বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থ্যতার বিষয়ই বিএনপি’র এখন একমাত্র রাজনীতি:তথ্যমন্ত্রী

রাজশাহী

নওগাঁ প্রতিনিধি: বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ ও সুদুরপ্রসারী নেতৃত্বের কারনে বাংলাদেশের সকল মানুষের অর্থনৈতিক পরিবর্তন এসেছে। বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ভারতকেও ছাড়িয়ে গেছে। পাকিস্থানকে অনেক আগেই ছাড়িয়ে গেছে। পাকিস্তান এখন বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি দেখে দীর্ঘশ্বাস ফেলছে। পাকিস্তানের জনগনের কাছে বাংলাদেশ এখন উদাহরন। পাকিস্তানের জনগন এখন সে দেশকে বাংলাদেশ বানানোর আহবান জানাচ্ছেন। মন্ত্রী বৃহষ্পতিবার দুপুর দেড়টায় নওগাঁ জিলা স্কুল মাঠে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ নওগাঁ পৌর শাথার ত্রিবার্সিক কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেছেন। মন্ত্রী আরও বলেছেন বিএনপি এখন সব বিষয় নিয়ে অখুশি। দেশের মানুষ খুশি হওয়ায় অখুশি । আবার তাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সুস্থ্য হওয়ায় খুশি। বিএনপি’র আর কোন রাজনীতি নাই। বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থ্যতার বিষয়ই তাদের এখন একমাত্র রাজনীতি।

চলমান নির্বাচন গঠন নিয়ে বিএনপি’র ভুমিকার সমালোচান করে তথ্যমন্ত্রী বলেন দেশের অপরাপর রাজনৈতিক দল এবং দেশের সুশীল সমাজের সকলেই যখন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য সার্চ কমিটির নিকট নাম জমা দিয়েছে তখন বিএনপি সেখান থেকে দুরে থাকলো। দেশের সকল সুশীল সমাজের মানিুষ যখন প্রায় ৩শ জন মানুষের নাম সার্চ কমিটির নিকট জমা দিয়েছেন তখন বিএনপি নাম জমা দিল কি না দিল তাতে কিছ যায় আসে না। তবে তিনি বলেন বিএনপি সরাসরি নাম জমা না দিলেও তাদের মনোনীত ব্যক্তিরা নাম ঠিকই জমা দিয়েছে।

মন্ত্রী বলেন বিএনপি নির্বাচন কমিশন নিয়ে কখনই খুশি নয় । কারন একমাত্র জয়ের নিশ্চয়তা না পেলে নির্বাচন কমিশনে ফেরেশতাদের সম্পৃক্ত করলেও তারা খুশি হবে না। আসন্ন নির্বাচন কমিশনে যদি ৩ জন ফেরেশতাকে মনোনয়ন দেয়া হয় সেই কমিশনের প্রতিও তাদের কোন আস্থা থাকবে না। সার্চ কমিটির দেয়া নামগুলোর মধ্যে তেকে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করে একটি সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন অনুষ্ঠি হবে বলে তিনি প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তথ্যমন্ত্রী দেশের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নের কথা তুলে ধরে বলেন বর্তমান সরকারের গৃহিত গঠনমুলক পদক্ষেপের কারনে মানুষের অর্থনৈতিক ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে দে“েশর একজন রিক্সাচালক প্রতিদিন ৬ থেকে ৭শ টাকা আয় করেন। ঢাকা এবং চট্টগ্রামের মত শহরে একজন শ্রমিক প্রতিদিন কমপক্ষে এক হাজার টাকা আয় করেন। প্রতিটি মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে। যথন দেশের প্রতিটি মানুষ অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী, যখন ঘরে ঘরে সুখ স্বাচ্ছন্দ। জনগণ যখন আওয়ামীলীগের রাজনীতির প্রতি সন্তুষ্ট তখন স্বাধীনতার বিপক্ষের এবং পাকিস্তানের দোসররা দেশ ও সরকারের বিরুদ্ধে দেশের অভ্যন্তরে এবং দেশের বাইরে আন্তর্জাতিক মহলে গভীর চক্রান্তে লিপ্ত হয়ে পড়েছে।

তিনি আরও বলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উদ্যোগে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল এবং আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছিলাম। স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যথন দেশেল উন্নয়নে মনোনিবেশ করেন, দেশে বিদেশে যখন প্রশংসা অর্জন করছিলেন তখনই পাকিস্তানের দোসররা তাকে হত্যা করে দেশের উন্নয়ন বন্ধ করে দিয়েছিল । অথচ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেথ মুজিবুর রহমানের সরকারের সমং অঅমাদেরন জাতয়ি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছিলেম ৯ দশমিক ৫৯ ভাগ। আমরা প্রবৃদ্ধির সেই রেকর্ড অতিক্রম করতে পারিনি।

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ আরও বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের ব্যপক উন্নয়ন কর্মকান্ড অর্জিত হয়েছে। এই সাফল্যের নজির দেখে অনেকেই পিঠ বাঁচাতে আওয়ামীলীগে যোগদান করতে আসবেন। যারা পিঠ বাচাতে আওয়ামীলীগে আসতে চাইবে, যারা জমি দখলের সাথে জড়িত, যারা মাদকের সাথে জড়িত তারা দলের নেতৃত্বে আসতে পারবেনা। এ ব্যপারে স্থানীয় নেতাকমর্েিদর প্রতি প্রতি কঠোর হুশিয়ারী প্রদান করেন।

নওগাঁ পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি দেওয়ান ছেকার আহম্মেদ শিষানের সভাপতিত্বে আয়োজিত সম্মেলনের উদ্বোধন করেন নওগাঁ জেলা আওয়ামীরীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল মালেক। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারনে সম্পাদক খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি।

সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ রোকেয়া সুলতানা, মোঃ শদিুজ্জমান সরকার এমপি, ব্যারিষ্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন এমপি, আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন হেলাল এমপি এবং মোঃ ছলিম উদ্দিন তরফদার সেলিম এমপি।

স্ব.বা/বা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *