বাঘায় বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন

রাজশাহী

বাঘা প্রতিনিধি: বাঘায় যথাযোগ্য মর্যাদা ও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস (১৭মার্চ) উদযাপন করা হয় । উপজেলা প্রশাসন,বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ উপজেলা কমিটিসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দিবসটি পালন করে। উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক গৃহিত কর্মসূচির মধ্যে ছিল,সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি-বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন,সকাল ৯টায় উপজেলা কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার চত্বরে রক্ষিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভা,পুরুস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বাদ যোহর/সুবিধামত সময়ে মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল এবং অন্যান্য উপাসনালয়ে প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ১৫ মার্চ রচনা প্রতিযোগিতা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার অয়োজন করা হয়।

উপজেলা নির্বাহি অফিসার পাপিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে শিশুদের নিয়ে কেক কাটা হয়। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড. লায়েব উদ্দিন লাভলু ও উপজেলা নির্বাহি অফিসার পাপিয়া সুলতানা, আ’লীগ দলীয় নের্তৃবৃন্দকে নিয়ে কেক কেটে আলোচনা সভায় অংশ নেন।
উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসার এমরান আলীর সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল,উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মোকাদ্দেস সরকার,রিজিয়া আজিজ সরকার,বাঘা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল করিম, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ নছিম উদ্দিন, সিরাজুল ইসলাম মন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক উপাধ্যক্ষ ওয়াহিদ সাদিক কবির,সিনিয়র সদস্য মাসুদ রানা তিলু, পৌর আ’লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সরকার,সাধারন সম্পাদক মামুন হোসেন, বাঘা পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান পিন্টু, ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম,রফিকুল ইসলাম রফিক, উপজেলা কৃষি অফিসার শফিউল্লাহ সুলতান, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাশেদ আহম্মেদ, নির্বাচন অফিসার মুজিবুল আলম, আনসার ভিডিপি অফিসার মিলন কুমার দাস,বীর মুক্তিযোদ্ধা জোনাব আলী, পৌর আ’লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেন,উপজেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগ সভাপতি আনোয়ার হোসেন মিল্টনসহ শিক্ষক- শিক্ষার্থী ও সাংবাদিক ।

সভায় বক্তারা বলেন,চিরন্তন প্রেরণার উৎস, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কেবল বাঙালি জাতির নন, তিনি বিশ্বে নির্যাতিত, নিপীড়িত ও শোষিত মানুষের স্বাধীনতার প্রতীক, মুক্তির দূত। মুক্তিযুদ্ধের এই মহানায়ক ১৯২০ সালের এই দিনে ফরিদপুর জেলার তৎকালীন গোপালগঞ্জ মহকুমার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। শিশুকালে ‘খোকা’ নামে পরিচিত সেই শিশুটি পরবর্তী সময়ে হয়ে ওঠেন নির্যাতিত-নিপীড়িত বাঙালি জাতির মুক্তির দিশারি। গভীর রাজনৈতিক প্রজ্ঞা, আত্মত্যাগ ও জনগণের প্রতি অসাধারণ মমত্ববোধের কারণেই পরিণত বয়সে হয়ে ওঠেন বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা। সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশকে যখন অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে পরিচালিত করছিলেন, তখনই ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট একদল বিপথগামী সেনা কর্মকর্তার হাতে সপরিবারে নিহত হন তিনি। তাঁর কর্ম ও আদর্শ চিরকাল দেশের মানুষের মাঝে বেঁচে থাকবে।

স্ব.বা/বা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *