তানোরের বাধাঁইড় ইউপি চেয়ারম্যান আতাউরের ইমেজ সঙ্কট

রাজশাহী

তানোর প্রতিনিধি: রাজশাহী তানোরের বাধাঁইড় ইউনিয়ন (ইউপি) আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা এবং কর্মী-সমর্থকদের মাঝ দলীয় কোন্দল ও মতবিরোধ প্রকট আকার ধারণ করেছে, দেখা দিয়েছে চেয়ারম্যন আতাউরের প্রচন্ড ইমেজ সংকট।

ইউপি আওয়ামী লীগের সম্পাদক ও চেয়ারম্যান আতাউর রহমানকে ঘিরে গড়ে উঠা ৫১ সদস্যর দালাল চক্রকে নিয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে এসব কোন্দল ও মতবিরোধের সুত্রপাত হয়েছে, এছাড়াও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম রাব্বানীর সঙ্গে গোপণে তার নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষার বিষয়টিও নিয়ে ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা।
এসব কারণে তৃণমুলের নেতা ও কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে আতাউর রহমানের সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটেছে, প্রকট হয়েছে দলীয়কোন্দল, ভেঙ্গে পড়েছে দলের চেইন অব কমান্ড। আতাউর এখন বাধাঁইড়-এর বিঁষফোঁড়া।

জানা গেছে, গভীর নলকুপ অপারেটর ও খাস জমি বাণিজ্য, ডাসকোর পুকুর খনন, ইজিপি, টিআর-কাবিটা, এলজিএসপি, মাতৃত্বকালীন ভাতা, করোনাকালীন সময়ে সরকারী সহায়তা বিতরণে নয়ছয়সহ ইত্যাদি প্রকল্প বাস্তবায়নে স্বজনপ্রীতি, অনিয়ম, স্বচ্ছতার অভাব ও কাঙ্খিত উন্নয়নে ব্যর্থ হওয়ায় অনেকটা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে চরম ইমেজ সঙ্কটে পড়ে চেয়ারম্যান আতাউর। তার সঙ্গে তৃণমুল নেতাকর্মীদের সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটে।

এসব কারণে দলের সিনিয়র নেতারা তাকে ত্যাগ করেছে, পাশাপাশি তৃণমুলের নেতাকর্মীরাও তাঁর উপর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে, এতে চরম সংকটে পড়েছে তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার।এবার ইউপি নির্বাচনে তার প্রার্থীতার বিরোধীতা করে বিকল্প হিসেবে উপজেলা যুবলীগের সম্পাদক জুবায়ের ইসলামের নাম প্রস্তাব করেছিলেন তৃণমুল। কিন্ত্ত তৃণমুলের মতামত উপেক্ষা করে আবারো তাকেই মনোনয়ন দেয়া হয়।

তবে ভোটের মাঠে এবার তার কোনো জনপ্রিয়তায় ছিলনা। স্থানীয় সাংসদ এবং উপজেলা চেয়ারম্যানের জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে বির্তকিত ফলাফলে বিজয়ী হয়েছেন। কিন্ত্ত বিজয়ী হবার পর পরই তিনি সাংসদ ও উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুগত নেতাকর্মীদের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটিয়েছেন।কারণ রাব্বানী-মামুন অনুসারীরা তার কাছে থেকে যে সুযোগ-সুবিধা পায় তার ছিটেফোঁটা পায় না সাংসদ-উপজেলা চেয়ারম্যান অনুসারী নেতাকর্মীরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ইউপি সদস্য বলেন, মুক্তার, গনেশ, সাদিকুল, শাফিউলসহ ৫১ জন দালাল ইউপি ভবন নিয়ন্ত্রণ করে তাদের দৌরাত্ম্যে সদস্যরা অসহায়। আগামিতে চেয়ারম্যানকে সম্পাদকের পদ থেকে অব্যাহতি না দিলে দলের সাংগঠনিক অবস্থা ভেঙ্গে পড়বে। তাই আগামির নেতৃত্ব ধরে রাখতে আতাউরের বিকল্প হিসেবে জুবায়ের ইসলামকে মাঠে নামার আহবান জানানো হয়েছে।

গোলাম রাব্বানীর ঘনিষ্ঠ সহচর বলেন, রাব্বানীর হাতে তৈরী আতাউর। তিনি বলেন, এখানো তাদের মধ্যে নিয়মিত যোগাযোগ হয়, এমনকি ভোটের একদিন আগে গোলাম রাব্বানীর সঙ্গে আতাউর রহমানের ঘন্টাব্যাপী বৈঠক হয়। এবিষয়ে জানতে চাইলে বাধাঁইড় ইউপি আওয়ামী লীগের সম্পাদক ও চেয়ারম্যান আতাউর রহমান এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের এসব প্রোপাগান্ডা।

 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *