উপহার ছাড়াই মেয়ের বিয়েতে সাবেক পৌর মেয়রের আমন্ত্রণ

রাজশাহী

বাঘা প্রতিনিধি: বাঘা পৌরসভার সাবেক মেয়র আক্কাস আলীর ছোট মেয়ে সিফাত নুসরাত বৈশাখীর সাথে চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর থানার মহনপুর গ্রামের কাজী মিজানুর রহমানের একমাত্র ছেলে কাজী আবু জাফরের সাথে বিবাহের অনুষ্ঠানে উপহার ছাড়াই আমন্ত্রন করেন সাবেক মেয়র। বিয়ের এই অনূষ্ঠানে পনের হাজার লোককে আমন্ত্রন জানান সাবেক মেয়র। কোন উপহার ছাড়াই বিয়ের দাওয়াত করা হয়।

১২টি প্যান্ডের মাধ্যমে প্রায় ১৫ হাজার মানুষকে মেহমানদারি করা হয়। নিমন্ত্রণে পৌর এলাকার বিভিন্ন গ্রামের মানুষ , আত্নীয়- স্বজন, রাজনৈতিক নেতাকর্মী, বিভিন্ন প্রশাসনে লোকজন, সাংবাদিক, বরযাত্রী, শিক্ষক,বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যান, ইউপি সদস্যসহ কর্মচারী অংশ গ্রহণ করেন। শনিবার (৭ মে) তাঁর নিজ বাড়ি পৌরসভার ২নম্বর ওয়ার্ড় কলিগ্রামে এই আয়োজন করা হয়।

এ বিষয়ে পৌর এলাকার কলিগ্রামের মোস্তফা হোসেন বলেন, সাবেক মেয়রের এই গ্রামের মানুষ। তিনি আমার স্বপরিবারকে দাওয়াত দিয়েছিলেন। সবাই গিয়ে সুন্দরভাবে দাওয়াত খেয়ে এসেছি।

উপজেলার বাউসা ইউনিয়নপরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য(মেম্বার) আবদুল আজিজ বলেন, আমাদের ইউনিয়নের চেয়ারম্যানসহ সবাইকে দাওয়াত দিয়েছিলেন। সেই মোতাবেক আমরা সবাই দাওয়াত খেয়েছি।

উপজেলার ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাইনুল ইসলাম মুক্তা বলেন, আমি এই অনুষ্টানে সার্বক্ষনিক দায়িত্বে ছিলাম। দাওয়াতি মানুষ সুষ্ট সুন্দরভাবে খেয়েছেন।
সাবেক মেয়রের ভাগ্নে উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেরাজুল ইসলাম বলেন, প্রায় ১৫ হাজার দাওয়াতি লোকদের বিরানি, পায়েস, বোতলজাত পানিসহ কমল পানিও দিয়ে মেহমানদারি করা হয়েছে। বেশি লোকের সমাগম হওয়ায় পরিবেশনায় কিছুটা হিমসিম খেতে হয়েছে। তবে অনুষ্টানটি সুষ্ট সুন্দরভাবে শেষ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বাঘা পৌরসভার সাবেক মেয়র আক্কাস আলী বলেন, মেয়েকে দোয়া করার জন্য দাওয়াত দিয়েছিলাম। দাওয়াতে মানুষজন সাড়া দিয়ে এসেছেন। বড় অনুষ্টান ভূলত্রুতি থাকতে পারে,তাই সবার কাছে নিজগুণে ক্ষমা চেয়েছেন তিনি।

 

 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *