নাটোরে পুলিশি বাধায় বিএনপির সংক্ষিপ্ত সমাবেশ; আ’লীগের হামলায় ২ ছাত্রদল নেতা আহত!

রাজশাহী
নাটোর প্রতিনিধিঃ নাটোরে পুলিশি বাধায় বিএনপি সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেছে। সমাবেশে বিএনপির কেন্দ্রিয় বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। এদিকে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে ফেরার পথে আওয়ামীলীগ কর্মীদের হামলায় সদর উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক আনাম আহম্মেদ এবং তেবাড়িয়া এলাকায় একই সংগঠনের  যুগ্ম আহবায়ক শরিফুল ইসলাম সুমন আহত হয়েছেন। অপরদিকে বিএনপির নৈরাজ্যের প্রতিবাদে যুবলীগ বিক্ষোভ মিছিল ও ছাত্রলীগ মোটর সাইকেল র‍্যালী করে।
দেশব্যাপী বিএনপি নেতা-কর্মীদের ওপর আওয়ামী লীগের হামলার প্রতিবাদে দলের নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভ সমাবেশ যোগ দিতে শনিবার বেলা ১১ টার দিকে শহরের আলাইপুর হাফরাস্তা এলাকায় দলের অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে এসে জড়ো হয়। সমাবেশে যোগদিতে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও দলের কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আলহাজ্ব আমিনুল হক, সদস্য সচিব রহিম নেওয়াজসহ দলের নেতৃবৃন্দও কার্যালয়ের সামনে এসে হাজির হন। তারা দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল করার সময় পুলিশ বাধা দেয়। এসময় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও দলের কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল পুলিশের কাছে জানতে চান কেন মিছিল করতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। অনুমতি নেই বলে পুলিশ জানিয়ে দিয়ে এলাকা থেকে সরে যেতে বললে নেতা কর্মীরা দলীয় কার্যালয়ের ভিতরে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও দলের কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আলহাজ্ব আমিনুল হক, সদস্য সচিব রহিম নেওয়াজ, বিএনপি নেতা এডভোকেট মজিবর রহমান মন্টু,সাইফুল ইসলাম আফতাব,আসাদুজ্জামান আসাদ,যুবদল নেতা আনিসুর রহমান আনিস, ছাত্রনেতা মারুফ ইসলাম সৃজনসহ নেতাকর্মীরা।
সমাবেশে বিএনপির কেন্দ্রিয় নেতা রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, আওয়ামীলীগ নিজেরাই অপকর্ম করে তার দায় চাপাচ্ছে বিএনপি’র ওপর। ভোজ্য তেলসহ বিভিন্ন দ্রব্য সিন্ডিকেট করে মূল্য বৃদ্ধি করে এক অস্থির পরিবেশ তৈরী করেছে তারা। সাধারণ জনগণের আজ নাভিশ্বাস উঠেছে। দেশ আজ শ্রীলংকার মত অবস্থায় চলে গেছে। এ অবস্থা চলতে দেওয়া যায় না। বিএনপিসহ বিরোধী দল প্রতিবাদ সমাবেশ করতে গেলেও বাধা দেওয়া হয়। এর পর থেকে কোন অনুমতি ছাড়াই যে কেন স্থানে প্রতিবাদ সমাবেশ করা হবে। বাধা এলে প্রতিরোধ করা হবে বলে বক্তারা ঘোষণা দেন।
এদিকে জেলা বিএনপির সদস্য সচিব রহিম নেওয়াজ জানান,এই কর্মসুচী শেষে বাড়ি ফেরার পথে শহরের আলাইপুরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে আওয়ামীলীগ কর্মীরা হামলা চালিয়ে নাটোর সদর উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক আনাম আহম্মেদকে এবং তেবাড়িয়া এলাকায় একই সংগঠনের  যুগ্ম আহবায়ক শরিফুল ইসলাম সুমনকে কুপিয়ে জখম করে । আনাম ও সুমন বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
অপরদিকে বিএনপির নৈরাজ্যের প্রতিবাদ জানিয়ে যুবলীগ শহরের কানাইখালী এলাকায় এবং ছাত্রলীগ শহরের বিভিন্ন এলাকায় মোটর সাইকেল র‍্যালী করে।
যুবলীগ সভাপতি বাশিরুর রহমান এহিয়া চৌধুরী বলেন, বিএনপির অভ্যন্তরিন বিরোধে নিজেরাই নিজেদের মধ্যে মারামারি করে আওয়ামীলীগের ওপর দায় চাপাচ্ছে।
পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, মারপিটের ঘটনা শুনে এলাকায় পুলিশ পাঠানো হয়। তবে কেউ কোন অভিযোগ করেননি। শহরের শান্তিপুর্ন পরিবেশ বজায় রাখতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *