ইউনিয়ন পরিষদের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য ডেনমার্কের জনগণের ট্যাক্সের টাকায় প্রকল্প: বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত

রাজশাহী লীড

বাঘা প্রতিনিধি: ইউনিয়ন পরিষদের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য ডেনমার্কের জনগণের ট্যাক্সের টাকায় প্রকল্প (ইএএলজি) । এ কথা বলেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইনি এস্ট্রাপ পিটার সেন। কার্যকর ও জবাবদিহি মূলক স্থানীয় সরকার শাসন প্রকল্পের উন্নয়ন মূলক আলোচনা সভায় ওই কথা বলেন তিনি। সোমবার (১৬ মে) বিকেল সাড়ে ৪ টায় রাজশাহীর বাঘা উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক আয়োাজিত পরিষদের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যেকালে তিনি আরো বলেন, প্রকল্পের শেষ পর্যায়ের কাজ চলছে। প্রকল্পের উন্নয়ন দেখে আমি অভিভূত হয়েছি। আমরা এই উন্নয়নমূলক কাজে অংশ নিতে পেরে খুশি হয়েছি।

এছাড়াও এই প্রকল্প থেকে যে সুন্দর চর্চা শুরু হলো, তা অব্যাহত রাখার আহবান জানান উইনি এস্ট্রাপ পিটার সেন । সভা শেষে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বর ঘুরে দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এ সময় মনিগ্রাম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দুটি শ্রেণি কক্ষ নির্মাণ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন উইনি এস্ট্রাপ পিটার সেন।

কার্যকর ও জবাবদিহি মূলক স্থানীয় সরকার শাসন প্রকল্পের (ইএএলজি) ডিস্ট্রিক ফেসিলিটেটর (ডিএফ) আবু হেনা মোস্তফা কামালের পরিচালনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন ডেনমার্ক দূতাবাসের সিনিয়র এডভাইজার আমিনুজ্জামান, রাষ্ট্রদূতের অতিথি মি. জেন এস্ট্রাপ পিটার সেন, রাজশাহীর উপ-পরিচালক (স্থানীয় সরকার) শাহানা আখতার জাহান, প্রকল্পের প্রোগ্রামার মোজাম্মেল হক, বাঘা উপজেলা নির্বাহী অষিার পাপিয়া সুলতানা, প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর শরিফুল হকসহ প্রকল্পের বাসস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সদস্যগণ। এর আগে বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইনি এস্ট্রাপ পিটারসেনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বাঘা উপজেলা নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী জেলার ৩০টি ইউনিয়ন ও দুইটি উপজেলা পরিষদকে প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছে। এর মাধ্যমে পরিষদগুলোতে নিয়মিত গণশুনানি, পরিষদের স্থায়ী কমিটির সভা আয়োজন, জলবায়ু পরিবর্তন ও জেন্ডার বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধি, উন্মুক্ত বাজেট সভা, পরিষদের সঙ্গে স্থানীয় মেয়ে শিক্ষার্থীদের সংলাপ অনুষ্ঠান, উপজেলা পরিষদের বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ, উপজেলা পরিষদ কমিটির সদস্যদের প্রশিক্ষণ, ওয়ার্ড সভা, ইউনিয়ন পরিষদের কর ধার্য ও আদায় সহায়তাকরণ, উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদের এসডিজি বান্ধব পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা প্রনয়ণ, এসডিজি বিল বোর্ড স্থাপনসহ নানা কর্মসূচি পালনে উদ্বুদ্ধ করা হয়েছে।

এসব কর্মসূচির কারণে ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে সেবার মান পরিবর্তন এসেছে। স্থানীয় নাগরিকরা তাদের পরিষদ কর্মকান্ড সম্পর্কেও বিস্তারিত জানতে পারছেন।

এমন কথাই বলেছেন,প্রকল্পের সংশ্লিষ্ট সদস্যরা। মনিগ্রাম ইউনিয়নের মহদিপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম বলেন, তার এলাকায় রাস্তার বিষয়ে ওয়ার্ড সভায় তুলে ধরলে প্রকল্পের মাধ্যমে সংস্কার করা হয়েছে। একই গ্রামের লাবনী বেগম বলেন, তার অভাবের সংসারের বিষয়ে ওয়ার্ড সভায় উপস্থাপনা করা হলে আমাকে একটি সেলাই মেশিন দেন। আমি এতে উপকৃত হয়েছি। আরেক সদস্য টুলুয়ারা বেগম বলেন, বিধবাব ভাতার বিষয়ে তুলে ধরায় আমাকে ভাতার কার্ড করে দেওয়া হয়েছে।

মীরগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তামান্না খাতুন বলেন, সে প্রতিদিন ৩ কিলোমিটার পথ যাতাযাতের অর্থ সংকটের বিষয়টি ওয়ার্ড সভায় তুলে ধরলে তাকে একটি বাইসাইকেল দেওয়া হয়েছে।

 

স্ব.বা/বা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *