আইপিএলের মাঝপথে গেইল কেন প্রীতির পাঞ্জাব ছাড়লেন?

খেলাধুলা
স্বদেশবাণী ডেস্ক: ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) চলতি ১৪তম আসরের মাঝপথেই প্রীতি জিনতার পাঞ্জাব কিংস ছেড়ে চলে গেলেন ক্রিস গেইল।
ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই তারকা ক্রিকেটার চলতি মাসে আরব আমিরাতে শুরু হতে যাওয়া টি-টোয়েন্ট বিশ্বকাপে জাতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতেই আইপিএল ছাড়লেন।
বৃহস্পতিবার রাতে পাঞ্জাব কিংসের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, করোনার এই কঠিন সময়ে টানা বায়ো বাবলে থাকার ক্লান্তি সহ্য হচ্ছে না ক্রিস গেইলের। তাই আইপিএলের বায়ো বাবল ভেঙে টুর্নামেন্ট থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন ক্যারিবীয় সুপারস্টার।
চলতি বছরের ২ মে ভারতে করোনাভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করায় স্থগিত হয়ে যায় আইপিএলের ১৪তম আসরের খেলা। ভারতে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতি এড়াতে আইপিএলের বাকি ম্যাচগুলো আরব আমিরাতে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয় ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)।
সৌরভ গাঙ্গুলীর বোর্ডের সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত ১৯ সেপ্টেম্বর আমিরাতে শুরু হয় আইপিএল ১৪তম আসরের দ্বিতীয় পর্বের খেলা। দ্বিতীয় পর্বে পাঞ্জাব ইতোমধ্যে খেলেছে ৩টি ম্যাচ। সেই তিন ম্যাচের মধ্যে দুটিতে সুযোগ পেয়েছেন গেইল।
আইপিএলের ফাইনালের আগে ফ্র্যাঞ্চাইজি এ টুর্নামেন্ট ছেড়ে গেইলের চলে যাওয়া প্রসঙ্গে পাঞ্জাব কিংসের পক্ষ থেকে জানানো হয়— আসন্ন বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন ক্যারিবীয় তারকা। করোনায় টানা বায়ো বাবলে কাটাতে হচ্ছে ক্রিকেটারদের, যা মানসিক ও শারীরিকভাবে ক্রিকেটারদের কাছে বেশ চ্যালেঞ্জিং। আইপিএলে খেলতে যাওয়ার আগে গেইল ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের বায়ো বাবলে ছিলেন। বিশ্বকাপের সময় নতুন করে আবার বায়ো বাবলে কাটাতে হবে।সেই চাপ সহ্য করতে না পেরেই আপাতত নিজেকে ফুরফুরে মেজাজে রাখার লক্ষ্যে বায়ো বাবল ছাড়লেন গেইল।
আইপিএল ছাড়া প্রসঙ্গে ক্রিস গেইল জানান, গত কয়েক মাসে জাতীয় দলের বায়ো বাবল, ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের বায়ো বাবল— এরপর আইপিএলেও বায়ো বাবলে থাকতে হয়েছে। নিজেকে মানসিক ও শারীরিকভাবে ফিট রেখে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু করতে চাই। সে কারণেই আইপিএল থেকে ব্রেক নিলাম। আমাকে সময় দেওয়ার জন্য পাঞ্জাব কিংসকে ধন্যবাদ। টুর্নামেন্টে পাঞ্জাবের জন্য আমার শুভেচ্ছা সবসময় থাকবে। আসন্ন ম্যাচগুলোয় দল ভালো করবে, আশা করি।
পাঞ্চাব কিংসের প্রধান কোচ অনিল কুম্বলে জানিয়েছেন, ক্রিস গেইলের সিদ্ধান্তকে আমরা সম্মান জানাই। গেইলের বিপক্ষে যেমন খেলেছি, তেমন পাঞ্জাব কিংসে ওকে কোচিংও করিয়েছি। যত বছর ওকে কাছ থেকে দেখেছি, সেই অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি— ও একদম পেশাদার। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য গেইলের এই সিদ্ধান্তকে পাঞ্জাব সম্মান জানায়।
পাঞ্জাব কিংসের সিইও সতীশ মেনন জানান, ক্রিস গেইল একজন কিংবদন্তি। ও টি-টোয়েন্টি খেলার ধরনটাই বদলে দিয়েছে। ওর সিদ্ধান্তে আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। ও পাঞ্জাব কিংস পরিবারের সদস্য। ওকে আমরা মিস করব।
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *