শোয়েব আখতারের কাছে সাড়ে ৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি

খেলাধুলা

স্বদেশবাণী ডেস্ক : শোয়েব আখতারের কাছে টিভি উপস্থাপক নোমান নিয়াজ করজোড়ে ক্ষমা চাওয়ায় অনেকেই ভেবেছিলেন এই বিব্রতকর ঘটনার সমাপ্তি ঘটল। কিন্তু না, এক দাবি করে ফের পরিস্থিতিকে আরও ঘোলাটে করল পাকিস্তানের সরকারি টিভি চ্যানেল পিটিভি।

শোয়েব আখতারের কাছে ১০০ মিলিয়ন পাকিস্তানি রুপি তথা ৫ কোটি ৪৬ লাখ ৭ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়েছে চ্যানেলটি।

রেগে গিয়ে টিভি অনুষ্ঠান থেকে বের হয়ে যাওয়ায় এবং পরে অনুষ্ঠানে যোগ না দেওয়ায় এ ক্ষতিপূরণ দাবি করে শোয়েবকে আইনি নোটিশও দিয়েছে তারা।

আর শোয়েবও আইনি লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

পিটিভির ওই নোটিশে বলা হয়েছে— শোয়েব পিটিভি স্পোর্টসকে অবহিত না করে দুবাই ঘুরে এসেছেন। সেখানে ভারতের ক্রিকেটারদের সঙ্গে একটি অনুষ্ঠানও করেছেন। এতে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল পিটিভির মান ক্ষুণ্ণ হয়েছে। শোয়েবের এসব আচরণে পিটিভির ক্ষতি হয়েছে।  তার থেকে ১০০ মিলিয়ন পাকিস্তান রুপি ক্ষতিপূরণ চাওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত বিশ্বকাপে ভারতকে প্রথমবারের মতো হারানোর পর বাবর আজমদের দুরন্ত পারফরম্যান্স ও কোহলিদের ব্যর্থতা নিয়ে ওই সময় পিটিভির এক লাইভ টকশোতে হাজির হন শোয়েব আখতার।

সেখানে পাকিস্তানের বোলার হারিস রউফের উত্থানের কথা বলছিলেন শোয়েব। হারিস কীভাবে নিজের বোলিংয়ে উন্নতি সাধন করেছেন তার ব্যাখ্যা দিতে থাকেন তিনি।

এ সময় তাকে থামিয়ে পাকিস্তানের আরেক পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদির প্রসঙ্গ টেনে আনেন উপস্থাপক নিয়াজ। শাহিন কীভাবে পাকিস্তানের অনূর্ধ্ব-১৯ দলে দুর্দান্ত পারফরম করে জাতীয় দলে জায়গা করে নিয়েছেন সেই ইতিহাস বলতে থাকেন।

আর ব্যাপারটি মোটেই ভালো লাগেনি শোয়েবের। এ নিয়ে বাদানুবাদের একপর্যায়ে উপস্থাপক নোমান নিয়াজ বলে ওঠেন— ‘আপনি (শোয়েব) অতিচালাক এবং অভদ্রের মতো আচরণ করছেন’ বলেই অনুষ্ঠানে বিজ্ঞাপন বিরতি দেন নিয়াজ।

বিরতির পর নিয়াজকে ওই আচরণের জন্য দুঃখ প্রকাশ করতে বলেন শোয়েব। কিন্তু নিয়াজ সেটি না করলে সবার কাছে ক্ষমা চেয়ে অনুষ্ঠান ত্যাগ করেন শোয়েব আখতার।

উপস্থাপকের এমন বক্তব্যের পর শোয়েব চাইছিলেন যে, বিরতির পর যেন লাইভেই তার কাছে ক্ষমা চান নোমান। কিন্তু বিরতির পর সেটি নোমান না করায় শোয়েব শো ছেড়ে উঠে চলে যান।

সূত্র: সামা টিভি

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *