রাবিতে এপিইই বিভাগের সঙ্গে একীভূত হতে চায় না ইইই বিভাগ

লীড শিক্ষা

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত পদার্থবিজ্ঞান ও ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থীদের বিভাগ একীভূতকরণের আন্দোলনকে অযৌক্তিক বলে দাবি করেছে ইলেট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বিজ্ঞান ভবনের সামনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীরা এ দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ‘ইইই’ বিভাগের শিক্ষার্থী হরপ্রসাদ বিশ্বাস বলেন, ‘আমরা ইইই বিভাগে ভর্তি হয়েছি একটা স্বতন্ত্র বিভাগ হিসেবে। আমরা আমাদের স্বকীয়তা ও স্বতন্ত্রতা রক্ষা করার জন্য ইইই বিভাগের সাথে এপিইই বিভাগের একত্রীকরণের বিপক্ষে। কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের দুটি বিভাগকে এক করার নজির নেই।

তিনি আরও বলেন, ভর্তি পরীক্ষায় যারা শীর্ষে অবস্থান করে তারাই ইইই বিভাগে ভর্তি হয়। তুলনামূক যারা নিচের দিকে তারা ভর্তি হন এপিইই বিভাগে। এ ছাড়াও দুই বিভাগের সিলেবাসেরও যথেষ্ট ভিন্নতা রয়েছে। এপিইই’র আন্দোলন সম্পূর্ণ অযৌক্তিক।

এর আগে, প্রথম বিজ্ঞান ভবনের সামনে রাস্তায় রক্ত ঢেলে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা। তারা সিরিঞ্জ দিয়ে নিজেদের শরীর থেকে রক্ত নিয়ে সেই রক্ত দিয়ে তারা লিখেছেন-‘ইইই’তে আসতে হলে রক্তের উপর দিয়ে আসতে হবে। উই ওয়ান্ট জাস্টিস।’ রক্ত ঢালার জন্য ইইই বিভাগের তিন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাদের মধ্যে একজনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

অসুস্থ শিক্ষার্থীরা হলেন, ইইই বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাজমুল হাসান, আবু বক্কর সিদ্দিক ও দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী অরিন্দম সান্যাল দীপ্ত।

এদিকে এপিইই বিভাগের শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে এদিন দুপুর দেড়টায় আমরণ অনশন কর্মসূচী স্থগিত করেন বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

‘ইইই’ বিভাগের সভাপতি আবু জাফর মু. তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দীর্ঘদিন ধরে সমস্যা সুরাহার দাবি জানিয়ে আসছি। কিন্তু প্রশাসন আজ পর্যন্ত সমস্যার সমাধান দিতে পারেনি। বিভাগের শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছি কিন্তু তারা আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে।’

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.