বাঘা থানা থেকে দু’শ গজ দুরে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে চুরি !

রাজশাহী লীড

বাঘা প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাঘা থানা থেকে মাত্র দু’শ গজ দুরে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে দুধর্ষ চুরি সংঘটিত হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে জানালার গ্রিল ভেঙ্গে এ চুরি সংঘটিত হয়। এ ঘটনায় প্রশাসনে ভাব মুর্তি ক্ষুন্য হয়েছে বলে উল্লেখ করেন স্থানীয়রা।

সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সারাদিন অফিস পরিচালনা শেষে নাইট কার্ড পার্থ’র উপর দায়িত্ব দিয়ে প্রতিদিনের ন্যায় অফিস বন্ধ করে বাড়ি চলে যান কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এরপর রাতে ব্যংকের পূর্বদিকের জানালার গ্রিল ভেঙ্গে চোরেরা অফিসের দুটি রুমে প্রবেশ করে এবং ব্যাংকের প্রয়োজনী কাগজপত্র তছনছ করা-সহ ১টি আলমারি ও ৭ টি টেবিলের ডয়ার ভাংচুর করে।

একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সম্বনয়ক ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ব্যবস্থাপক মনিরুল ইসলাম বলেন, আমাদের অফিস থেকে গ্রাহকের মাঝে প্রায় সাড়ে ৬ কোট টাকা ঋণ দেয়া রয়েছে। এ ঋণ থেকে প্রায় প্রতিদিন ৩ থেকে সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা জামানত জমা হয়। এ টাকার লোভে চোরেরা এমন কাজটি করেছে। কিন্ত এ টাকা সোনালী বাংকে প্রতিদিন জমা দেয়া হয়। ফলে কিছু কাগজপত্র ও আসবাপত্র ভাংচুর ছাড়া বিশেষ কোন ক্ষতি হয়নি। তিনি এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাঘা থানায় একটি জিডি করেছেন বলে জানান।

পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের নাইট কার্ড পার্থ কর্মকার বলেন, আমি ছুটি নিয়ে বাড়িতে গিয়েছিলাম। সন্ধ্যা ৭টার দিকে ব্যাংকের মধ্যেই ৩ নম্বর কক্ষে ঘুমিয়ে পড়ি। এক নম্বর কক্ষের জানালার গ্রিল ভেঙ্গে চোরেরা ভেতরে ঢুকে ব্যাংকের প্রয়োজনী কাগজপত্র তছনছ করে আলমারির ৭ টি ড্রয়ার ভাংচুর করা হয়েছে। আমি রাতে বুঝতে পারিনি। সকালে উঠে দেখি অফিসের চুরি হয়েছে। তাৎক্ষনিক বিষয়টি প্রধান কর্মকর্তা স্যারকে জানিয়েছি।

এদিকে বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে বলে জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা। একই কথা বলেন বাঘা থানার ওসি মহসীন আলী । তিনি এই চুরির ঘটনায় থানায় একটি ডায়েরি করেছেন বলে জানান।

উল্লেখ্য বাঘা থানার এক নম্বর গ্রেট থেকে মাত্র ৫০ গজ এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বাস বভন থেকে দেড়শ গজ দুরে অবস্থান এই ব্যাংকটি’র। এ স্থানটি যদি নিরাপদ স্থান না হয়ে থাকে-তাহলে উপজেলায় কথাও নিরাপদ স্থান নেই বলে মন্তব্য করেন স্থানীয় লোকজন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.