মিথুন নিটিংয়ের সার্বিক পরিস্থিতি তদন্তে কমিটি গঠন

গণমাধ্যম তথ্যপ্রযুক্তি

স্বদেশ বাণী ডেস্ক: দীর্ঘ সময় ধরে উৎপাদন বন্ধ থাকা মিথুন নিটিংয়ের সার্বিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। গঠিত কমিটিকে আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে একটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছে বলে বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে।

গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন- বিএসইসির অতিরিক্ত পরিচালক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক মেহেদী হাসান রনি এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের একজন ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) পদমর্যাদার কর্মকর্তা।

বিএসইসির চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, বিভিন্ন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বেঙ্গল ফাইন সিরামিকসের সার্বিক বিষয়ের ওপর তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করা প্রয়োজন বলে মনে করে কমিশন। এরই ধারাবাহিকতায় সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ (১৯৬৯ সালের অর্ডিন্যান্স নং ীারর) এর ২১ ধারা এবং বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন আইন, ১৯৯৩ (১৯৯৩ সালের ১৫নং আইন) এর ১৭ক ধারা অনুযায়ী কোম্পানিটির বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করার নির্দেশ দেওয়া হলো। তদন্ত কর্মকর্তারা এ আদেশ জারির ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে বিএসইসতে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেওয়া হলো।

বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে, তালিকাভুক্ত কিছু কোম্পানি অতীতে আর্থিক সংকটসহ নানা কারণে বন্ধ হয়ে গেছে। বর্তমান কমিশন অনেক অচল কোম্পানিকে সচল করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। কিছু কোম্পানির পর্ষদ পুনর্গঠন করে দিয়েছে। কোম্পানিগুলো সচল হলে বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ ফিরে পেতে পারেন। এর ধারাবাহিকতায় মিথুন নিটিং নিয়েও কাজ করছে কমিশন। কোম্পানির সঙ্গে জড়িত ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে তথ্য-উপাত্ত নিচ্ছে কমিশন। এর ধারাবাহিকতায় কিছুদিন আগে বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষের (বেপজা) কাছ থেকে মিথুন নিটিংয়ের হালনাগাদ তথ্য জানতে চেয়ে বেপজার নির্বাহী পরিচালক বরাবর চিঠি পাঠিয়েছিল বিএসইসি।

বেপজাকে দেওয়া ওই চিঠিতে বিএসইসি বলেছে, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত মিথুন নিটিংয়ের পরিশোধিত মূলধনের ৮২.৮০ শতাংশ সাধারণ বিনিয়োগকারীদের। বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে গত ২৩ আগস্ট বিএসইসির সঙ্গে মিথুন নিটিংয়ের পরিচালনা পর্ষদ এবং বেপজার প্রতিনিধির বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু, বেপজার প্রতিনিধি উপস্থিত না হওয়ায় বৈঠকটি বাতিল করা হয়। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের সুরক্ষার স্বার্থে কোম্পানির হালনাগাদ তথ্য জানাতে বেপজাকে অনুরোধ করে বিএসইসি।

জানা গেছে, ব্যবসায় মন্দা পরিস্থিতিতে পড়ে বিদ্যুৎ ও গ্যাস বিল, প্লটের লিজসহ নানা বকেয়া জমে যায় মিথুন নিটিংয়ের। বকেয়া আদায়ে চট্টগ্রাম রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চলের (সিইপিজেড) পুরনো কারখানার যন্ত্রপাতি ও অন্যান্য সম্পদ নিলামে বিক্রি করেছে দিয়েছে বেপজা। এদিকে, উৎপাদন বন্ধের খবর দীর্ঘদিন গোপন রেখে বেপজার নিলামের সময় তা প্রকাশ করেছে মিথুন নিটিং কর্তৃপক্ষ।

মিথুন নিটিংয়ের উৎপাদন বন্ধ থাকলেও কোম্পানিটির শেয়ার মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) ১৮.৮০ টাকায় লেনদেন হয়েছে। কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ৮০ কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ৩২ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। কোম্পানির শেয়ার সংখ্যা ৩ কোটি ২৪ লাখ ৯১ হাজার ১৬২টি। এরমধ্যে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে ১৭.২০ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১৭.০৩ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৬৫.৭৭ শতাংশ শেয়ার আছে।

স্ব.বা/রু

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.