সাব্বিরের চলচ্চিত্রে গাইলেন মমতাজ

বিনোদন

স্বদেশ বাণী ডেস্ক: প্রথমবারের মতো সিনেমা নির্মাণ করছেন নাট্যাভিনেতা ও নির্মাতা মীর সাব্বির। সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত এই সিনেমার নাম ‘রাত জাগা ফুল’। গেল ডিসেম্বর থেকেই অনেকটা গোপনে চলছে সিনেমাটির শুটিং। যদিও করোনার কারণে বেশ কিছুদিন শুটিং বন্ধ ছিল। তবে নতুন করে আবারও সব কাজ শুরু করেছেন সাব্বির। এরই মধ্যে সিনেমার টাইটেল গানের রেকর্ডিং সম্পন্ন হয়েছে। আর এ গানটি গেয়েছেন ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ।

সরকারি অনুদানের এ সিনেমাটির চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করছেন মীর সাব্বির নিজেই।

মমতাজ এ সিনেমাতে যে গানটি গেয়েছেন তার শিরোনাম হচ্ছে- ‘ফোটে ফুল ফোটে আলো অন্ধকারে’। সিনেমার এ টাইটেল গানটির কথাও লিখেছেন মীর সাব্বির। আর সুর ও সংগীত করেছেন ইমন চৌধুরী। সম্প্রতি গানটির রেকর্ডিং সম্পন্ন হয়েছে।

গানটি প্রসঙ্গে মমতাজ বলেন, ‘মীর সাব্বিরের সিনেমার এ গানটির কথা-সুর অত্যন্ত মনে ধরেছে। গাইতে গিয়েও খুব ভালো লাগছিল। আমার মনে হয় খুব সুন্দর একটি গান পেতে যাচ্ছেন শ্রোতারা। ‘রাত জাগা ফুল’ সিনেমার পুরো টিমের জন্য শুভকামনা রইলো।’

এ নিয়ে মীর সাব্বির বলেন, ‘যে গানটি আমরা করেছি তার জন্য মমতাজ আপার বিকল্প আসলে ছিল না। বরাবরের মতোই তিনি অসাধারণ গেয়েছেন। রেকর্ডিংয়ের পর গানটি শুনে আমরা সবাই মুগ্ধ হয়েছি। আমার বিশ্বাস সিনেমার এ টাইটেল গানটি শ্রোতাদের মনে ধরবে।’

ইতিমধ্যে অডিওর পাশাপাশি বেশ কিছু সিনেমায় গান গেয়ে প্রশংসিত হয়েছেন শিল্পী মমতাজ। আর এ কাজের জন্য স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও। তবে অনেক দিন ধরেই স্টেজ শো বা নতুন কোন গানের অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছে না তিনি। কারণ করোনা। খুব বেছে মনের মতো গান হলেই কেবল তাতে কন্ঠ দিচ্ছেন। এরই মধ্যে নতুন এ সিনেমাটিতে প্লে-ব্যাক করলেন এই ফোক সম্রাজ্ঞী।

উল্লেখ্য, মীর সাব্বির দেশীয় নাটকের জনপ্রিয় অভিনেতা। পাশাপাশি তিনি নাট্য পরিচালকও। এ পর্যন্ত প্রায় অর্ধশতাধিক খন্ড নাটক নির্মাণ করেছেন তিনি। সেই সঙ্গে ‘মকবুল’, ‘নোয়াশাল’, ‘মালেক হতে সাবধান’-এর মত ধারাবাহিক নাটকও নির্মাণ করেছে এই তারকা। এবার ‘রাত জাগা ফুল’ সিনেমা দিয়ে নতুন পরিচয়ে আসছেন তিনি।

আর ‘রাত জাগা ফুল’ সিনেমাটিতে অভিনয় করবেন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী ও আবু হুরায়রা তানভীর।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *