বিদেশে শুটিং করতে মানতে হবে যেসব শর্ত

বিনোদন

স্বদেশবাণী ডেস্ক: নাটক-সিনেমার গল্পের প্রয়োজনে অনেক সময় দেশের বাইরে গিয়ে শুটিং করার প্রয়োজন পড়ে।  বিদেশে শুটিং করতে পূর্বে তথ্য মন্ত্রণালয়ের কোনো অনুমতি নেওয়ার প্রয়োজন না থাকলেও এখন থেকে লাগবে।  নতুন এই নিয়ম অনুযায়ী অভিনয়শিল্পী, কলাকুশলী, সংগীতজ্ঞ, ও সংগীতশিল্পীদের অংশ নেওয়া সম্পর্কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

দেশীয় চলচ্চিত্র ও বিজ্ঞাপনে বিদেশি অভিনয়শিল্পী, কলাকুশলী, সংগীতজ্ঞ, সংগীতশিল্পী অংশগ্রহণ বিষয়ে নীতিমালায় (২০২১ সংশোধিত) এই নিয়ম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।  নীতিমালার চার নম্বরে বলা হয়েছে, দেশের সিনেমার শুটিং বিদেশে করতে চাইলে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিতে হবে।  অনুমোদন প্রদানের ক্ষেত্রে একটি কমিটি যাচাই-বাছাই করে সুপারিশ করবে।  কমিটি সুপারিশ করার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট চলচ্চিত্রের গল্প ও চিত্রনাট্য অনুযায়ী বিদেশে শুটিংয়ের প্রয়োজন আছে কি না, খরচের বিবরণী যথাযথ কি না ইত্যাদি বিষয় বিবেচনা করবে।

এই কমিটির সভাপতি হিসেবে থাকবেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও চলচ্চিত্র)।  সদস্য হিসেবে থাকবেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (চলচ্চিত্র), জননিরাপত্তা বিভাগের একজন উপযুক্ত প্রতিনিধি, বিএফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের একজন প্রতিনিধি, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সভাপতি।  কমিটির সদস্যসচিব হিসেবে থাকবেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (চলচ্চিত্র-১)।

নীতিমালায় দেশের বিজ্ঞাপনচিত্রে বিদেশি শিল্পীদের অভিনয় বিষয়ে বেশ কিছু নীতিমালা নেওয়া হয়েছে।  তিন নম্বর পয়েন্টে আছে, বিদেশি শিল্পীদের অংশ নেওয়ার মাধ্যমে বিজ্ঞাপন নির্মাণের ক্ষেত্রে সেই প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তিকে প্রতি বিদেশি শিল্পীর জন্য দুই লাখ টাকা ফি (ভ্যাট ও আয়কর ছাড়া) এবং নির্মিত বিজ্ঞাপন প্রচারের সময় টিভি চ্যানেল কর্তৃক এককালীন প্রতি বিজ্ঞাপনের জন্য ২০ হাজার টাকা ফি হিসেবে সরকারকে দিতে হবে।

নীতিমালায় আরো বলা হয়েছে, বিনা পারিশ্রমিকে বিদেশি অভিনয়শিল্পী, কলাকুশলী, সংগীতজ্ঞ, সংগীতশিল্পী ও বিজ্ঞাপনে বিদেশি শিল্পীদের অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ করা যাবে না।

বিদেশি অভিনয়শিল্পী, কলাকুশলী, সংগীতজ্ঞ, সংগীতশিল্পী ও বিজ্ঞাপনে বিদেশি শিল্পীদের এ দেশে আগমন, অবস্থান ও প্রত্যাবর্তনের দৈনিক শিডিউল পূর্বাহ্নেই প্রযোজক/নির্মাতা প্রতিষ্ঠান লিখিতভাবে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় অথবা বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনকে জানাতে হবে। শিডিউল পরিবর্তন হলেও জানাতে হবে সংশ্লিষ্টদের।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *