বাঘায় শোরুমে হামলা করে ভাংচুর, মারপিটের অভিযোগ, পাল্টা আক্রমন ঠেকাতে ৯৯৯ নম্বরে কল

রাজশাহী

বাঘা প্রতিনিধি: বাঘায় মেসার্স বন্ধু অটো মটরস শোরুমে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও দুইজনকে মারপিট করে নগদ টাকা ও উলকা গাড়ি নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলায় আহত,শোরুমের প্রোপাইটর বুলবুল আহমেদ ও আজরাইল হোসেনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়। তাদের দুইজনকেই ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার (১৬-৪-২০২১) রাত ৭টায় আড়ানি ইউনিয়নের হরিপুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ওইদিন ইফতার করে সারাদিনের বেচা কেনার হিসাব নিকাশ করছিলেন, বুলবুল আহমেদ ও আজরাইল। এসময় মুখে মাস্ক পরিহিত ৮ জনের একটি দল,বাজারের দক্ষিন দিক দিয়ে উত্তরে প্রবেশ করে ওই শোরুমে হামলা চালিয়ে ভাংচুর,মারপিট ও নগদ টাকাসহ মালামাল নিয়ে যায়।

বাজার সংলগ্ন বাসিন্দারা জানান,হৈচৈ শুনে তারা সেখানে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন কিন্তু তাদের ভয়ভীতি দেখায়ে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। তাদের তথ্যমতে হামলাকারিরা, ঘটনা ঘটিয়ে আড়ানি ষ্টেশনে যাতায়াতের সড়ক দিয়ে চলে যায়।

আহতদের একজন বুলবুল হোসেন জানান,কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই তাদের শোরুমে হামলা করা হয়েছে। ৬ মাস আগে,ডয়েডো ব্যাটারি চালিত অটো বাইক,নতুন টলি,ট্রাফে ট্রাক্টরের পার্টসসহ বিভিন্ন মালামাল বিক্রির জন্য বাজারের উত্তর দিকে ব্যক্তি মালিকানার মার্কেটের রুম ভাড়া নিয়ে শোরুম করেন।

এদিকে,শোরুমে হামলার জের ধরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাজারের পাশের খাগড়বাড়িয়া গ্রামের বদিউর আলম নামের একজনের বাড়িতে হামলা করা হয়। তাদের আক্রমন থেকে রক্ষা পেতে খাগড়বাড়িয়া বারুদিপাড়ার নজরুলের বাড়িতে আশ্রয় নেয় বদিউর আলম। সেখানেও আক্রমনের চেষ্টা করা হয়। সেই হামলার আক্রমন ঠেকাতে ৯৯৯ নম্বরে কল দিয়ে পুলিশ ডাকে বদিউর আলম।

জানা গেছে, মেসার্স বন্ধু অটো মটরস শোরুম থেকে ২ মাস আগে ব্যাটারি চালিত ইজি বাইক (উলকা নামেও পরিচিত) নেয় আড়ানি নুর নগর এলাকার জুয়েল নামের একজন। ৯২ হাজার টাকা দামের মধ্যে নগদ জমা দেয় ৫০ হাজার টাকা । ব্যাটারি বদলে না দেওয়ার কারণে বাঁকি টাকা দেয়না জুয়েল। এ নিয়ে গোলযোগ হলে জুয়েলকে মারধর করা হয়। যার প্রতিবাদ করে জুয়েলের পক্ষের লোকজন। বদিউর আলমের দাবি,হামলার ঘটনায় তাকে দোষী করা হলেও ঘটনার সাথে সে সম্পৃক্ত ছিলনা।

জানা গেছে, বিগত পৌর নির্বাচন ও মাদক বেচা-কেনার বিষয়াদি নিয়ে দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে মতবিরোধ চলছিল। সেই জের সমর্থিত লোকজনের মধ্যে পর্যায়ক্রমে ছড়িয়ে পড়ে। ১ মাস আগে শরিফুল ও বদিউরের মধ্যে গোলযোগের সুত্র ধরে মামলা দায়ের করা হলেও পরে স্থানীয়ভাবে নিষ্পত্তি করা হয়।

বাঘা থানার এস আই নাদিম মাহমুদ জানান, ৯৯৯ নম্বওে কল পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। পরিস্থিতি স্বাভাবিক দেখে চলে আসি। তবে ঘটনার প্রেক্ষিতে আজরাইলের ভাই আবু সাঈদ বাদি হয়ে আশিক ও বদিউর আলমসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। সেই অভিযোগে দোকানে হামলা চালিয়ে নগদ ২ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা ও দেড় লক্ষ টাকার মালামাল নেওয়ার অভিযোগ করা হয়েছে।

স্ব.বা/বা

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *