ঝড় তুললেন মুনিম, সাকিবের ব্যাটে রানের ফোয়ারা

খেলাধুলা

স্বদেশ বাণী ডেস্ক: ক্রিস গেইলকে অপরপ্রান্তে দর্শক বানিয়ে গেইলের মতো ঝড় তোলার কাজটি মোটেও সহজ নয়। সেই কাজটি আজ করে দেখালেন ফরচুন বরিশালের তরুণ ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের বিপক্ষে ম্যাচে মুনিমের ঝড়ো ব্যাটিংয়ের সামনে রীতিমতো দর্শকই হয়ে রইলেন গেইল। মুনিমের শুরুর ঝড়ের পর বরিশালের ইনিংসকে বাকি পথে এগিয়ে নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হওয়া আগের ম্যাচে ফিফটি হাঁকিয়েছিলেন তিনি। ধারাবাহিকতা ধরে রেখে আজও ব্যক্তিগত মাইলফলকটি ছুঁয়েছেন বরিশাল অধিনায়ক। মূলত এ দুজনের ব্যাটেই নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৫৫ রানের সংগ্রহ পেয়েছে বরিশাল। ইনিংস সূচনা করতে নেমে মুনিম করেছেন ৪ চার ও ৩ ছয়ের মারে ২৫ বলে ৪৬ রান। সাকিবের ব্যাট থেকে এসেছে ৪ চার ও ২ ছয়ের মারে ৩৭ বলে ৫০ রানের ইনিংস। বরিশালের সংগ্রহ আরও বড় হতে পারতো, যদি না মিডল অর্ডারে নামা তৌহিদ হৃদয় ৩১ রান তুলতেই খরচ করতে ফেলতেন ৩৭টি বল।

এবারের বিপিএলের অলিখিত নিয়মে পরিণত টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের ধারাবাহিকতা সিলেটেও বজায় রাখেন কুমিল্লার অধিনায়ক ইমরুল কায়েস। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই কুমিল্লার বোলারদের ওপর চড়াও হন নিজের অভিষেকে শূন্য রানে আউট হওয়া মুনিম শাহরিয়ার। নাহিদুল ইসলামের করা প্রথম ওভারের শেষ বলে প্রথম বাউন্ডারি হাঁকান মুনিম। নাহিদুলের পরের ওভারে জোড়া ছক্কা আসে তার ব্যাট থেকে। মাঝে মোস্তাফিজুর রহমানের বলে ক্রিস গেইল মারের নিজের প্রথম বাউন্ডারি। চতুর্থ ওভারে আক্রমণে এসে প্রথম বলেই গেইলের কাছে বাউন্ডারি হজম করেন বাঁহাতি স্পিনার তানভির ইসলাম।

তবে প্রতিশোধ নিতে সময় নেননি তানভির। ওভারের চতুর্থ বলে কাট শট খেলতে গিয়ে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে সুমন খানের হাতে ধরা পড়েন ১০ রান করা গেইল। অপরপ্রান্তে মুনিম ততক্ষণে করে ফেলেছেন ২২ রান। এরপর সুমনের করা পঞ্চম ওভারে দুই চারের সঙ্গে আরও একটি ছক্কা হাঁকান এ ডানহাতি ওপেনার।

পরের ওভারে সাজঘরে ফিরে যান নাজমুল হোসেন শান্ত। চলতি আসরে ধুঁকতে থাকা শান্তর ব্যাট থেকে আসে মাত্র ১ রান। এরপর বেশিক্ষণ থাকা হয়নি মুনিমেরও। সুনিল নারিনের বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ফিফটি দ্বারপ্রান্তে পৌঁছলেও, মইন আলির বোলিংয়ে ইমরুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান ৪৬ রান করা মুনিম।

তৌহিদ হৃদয়কে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে দলকে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দেন সাকিব আল হাসান। মইনের বলে ইনসাইড আউট শটে এক্সট্রা কভার দিয়ে দৃষ্টিনন্দন এক ছক্কা হাঁকান বরিশাল অধিনায়ক। মোস্তাফিজের বলে দারুণ জায়গা বানিয়ে লং অফ ও লং অন দিয়ে হাঁকান পরপর দুই বাউন্ডারি। এর পরের বলেই এক রান নিয়ে চলতি আসরে নিজের দ্বিতীয় ফিফটি পূরণ করেন সাকিব।

তবে পঞ্চাশ করার পর আর থাকতে পারেননি বরিশাল অধিনায়ক। করিম জানাতের বলে মুমিনুল হকের হাতে ধরা পড়ে ফিরে যান সাজঘরে। সাকিব আউট হওয়ার পর শেষের ১৭ বলে মাত্র ১৯ রান করতে পেরেছে বরিশাল। যার বড় দায় তৌহিদের। ইনিংসের নবম ওভার থেকে উইকেটে থেকে ৩৭ বলে মাত্র ৩১ রান করেন এ মিডলঅর্ডার ব্যাটার। এক ছয়ের মারে ১০ রান করেন ডোয়াইন ব্রাভো।

কুমিল্লার পক্ষে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন তানভির। এছাড়া করিম, মইন ও মোস্তাফিজের শিকার ১টি করে উইকেট।

স্ব.বা/ রু

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *