স্বাধীনতা বিরোধীদের প্রত্যাখান করতে হবে: ফজলে হোসেন বাদশা

রাজশাহী লীড

স্টাফ রিপোর্টার:
বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেছেন, যারা স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছিলেন এবং যারা তাদের প্রতিষ্ঠিত করে তাদের প্রত্যাখান করতে হবে। আসন্ন নির্বাচনে তাদের ভোট দেওয়া মানে মুক্তিযুদ্ধের সঙ্গে প্রতারণা করা, বাংলাদেশের জন্মের ইতিহাসকে ভুলে যাওয়া। তাই তাদের প্রত্যাখান করে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের শক্তিকে নির্বাচিত করতে হবে।

শনিবার রাতে রাজশাহী মহানগরীর ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মহিষবাথান চেতনার মোড়ে এক নির্বাচনি পথসভায় তিনি এ কথা বলেন। রাজশাহী-২ (সদর) আসনে ১৪ দল মনোনীত ও মহাজোট সমর্থিত নৌকা প্রতীকের এই প্রার্থী বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় ছিল। তখন বাজারে চাল পাওয়া যেত না। উত্তরাঞ্চলে মঙ্গা ছিল। আমরা বলেছিলাম, ভাত দেন। সরকার বলেছিল, ভাত খেতে হবে এমন কোনো কথা আছে? আলু খান, ভুট্টা খান। বিএনপি সরকার খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে ব্যর্থ হয়েছিল। আমাদের সরকার খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। আমরা ভিক্ষুক নয়। ১০ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়ে, তাদের খাবার দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেটা প্রমাণ করেছেন। দেশের জন্য এমন সরকারই দরকার।

রাজশাহী সদরের টানা দুইবারের এই সংসদ সদস্য বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনের সময় বিএনপি অপপ্রচার চালিয়েছিল যে নৌকায় ভোট দিলে মসজিদের আযান শোনা যাবে না। মসজিদে তালা পড়বে। আওয়ামী লীগ নির্বাচিত হওয়ার পর একটা মসজিদে তালা পড়েনি। এই শহরের প্রতিটি মসজিদের উন্নয়ন হয়েছে। ঈমামরা থাকলে তা বলতে পারবেন। শেখ হাসিনার সরকার এটা করেছে। এই সরকার জনগণের সরকার। প্রতিটি মানুষের সরকার। আগামী ২০২১ সাল পর্যন্ত সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশে গরীব মানুষ থাকবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবার ভাত-কাপড়ের ব্যবস্থা করবেন। তাই দলমত নির্বিশেষ সবার কাছে নৌকা প্রতীকে ভোট কামনা করেন তিনি।

সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শফিকুর রহমান বাদশা, সহ-সম্পাদক উপাধ্যক্ষ কামরুজ্জামান, রাজপাড়া থানা ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক আবদুল মতিন, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কামরুজ্জামান কামরু ও ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি, ওয়ার্কার্স পার্টির ১ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি আদিলুজ্জামান আদিল, ২ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি গোলাম রসুল বাবলু, ৫ নম্বরের গোলাম রসুল, ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তানজির আলম দুলাল প্রমুখ। সমাবেশ শেষে তারা মহিষবাথানসহ আশপাশের পাড়া-মহল্লায় নৌকার পক্ষে গণসংযোগ করেন। আর সমাবেশের আগে নগরীর কোর্ট স্টেশন এলাকায় নৌকার প্রচারণা চালান ফজলে হোসেন বাদশা।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.